default-image

নড়াইলে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। সোমবার সকালে জেলা ও দায়রা জজ মশিউর রহমান এই আদেশ দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ওই ব্যক্তির নাম এনায়েত মোল্লা (৪৮)। তিনি লোহাগড়া উপজেলার শালনগর ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের বাসিন্দা। নড়াইল সদর উপজেলার শাহাবাদ ইউনিয়নের চাঁদপুর গ্রামের জব্বার মোল্লার মেয়ে নার্গিস বেগমকে (৪০) হত্যার দায়ে এই সাজা দেওয়া হয়।

রায় ঘোষণার পর জেলা পুলিশ আদালত চত্বরে সংবাদ সম্মেলন করে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেড কোয়ার্টার) মাসুদ রানা বলেন, এনায়েত শ্বশুরবাড়িতে থাকতেন। তিনি ছিলেন যৌতুকলোভী। যৌতুকের জন্য প্রায়ই স্ত্রীকে নির্যাতন করতেন। তাঁর শ্বশুরবাড়ির পরিবার ছিল গরিব। নার্গিস বেগমের নামে তাঁর বাবা এক খণ্ড জমি লিখে দিয়েছিলেন। সেই জমি নিজের নামে লিখে নেওয়ার জন্য নির্যাতনও করেছেন এনায়েত। কিন্তু জমি লিখে দেননি নার্গিস।

বিজ্ঞাপন

এতে ক্ষিপ্ত হয় ২০১৮ সালের ২১ নভেম্বর রাতে নার্গিসকে হত্যা করে গলায় শাড়ি পেঁচিয়ে শ্বশুরবাড়ির পাশের আমগাছে ঝুলিয়ে রাখেন এনায়েত। এ ঘটনায় এনায়েতকে আসামি করে নিহত নার্গিসের বোন পারভীন খাতুন বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। পরে সেই মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। সদর থানার এসআই রেজাউল করিম মামলার তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ২ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

পুলিশ জানায়, কৃষিজীবী দরিদ্র পরিবারের সন্তান এনায়েত তিনটি বিয়ে করেন। প্রথম ও দ্বিতীয় স্ত্রীকে তালাক দিয়েছেন। কাশিপুর গ্রামে ওই দুই স্ত্রী পৃথকভাবে বসবাস করেন। তাঁদের তিন ছেলে আছে। ছেলেরা ঢাকায় বেসরকারি চাকরি করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন