পঞ্চগড়ে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু

বিজ্ঞাপন

পঞ্চগড় পৌরসভার ময়লা বহনকারী একটি ট্রাকের ধাক্কায় মিলন মিয়া (৪৪) নামের এক মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে সদর উপজেলার পঞ্চগড়-ভাউলাগঞ্জ সড়কের পূর্ব জালাসী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহত মিলন মিয়া সদর উপজেলার কামাত কাজলদিঘি ইউনিয়নের তালমা এলাকার রুহুল আমিনের ছেলে। ঘটনার পর বিভিন্ন দাবিতে ওই এলাকায় প্রায় দেড় ঘণ্টা পঞ্চগড়-ভাউলাগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে রাখেন বিক্ষুব্ধ লোকজন। এতে সড়কের দুই পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

খবর পেয়ে পুলিশসহ পঞ্চগড় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের দাবিদাওয়া মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে বেলা দেড়টার দিকে তাঁরা অবরোধ তুলে নেন এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।
পুলিশ ও কয়েকজন বাসিন্দা জানান, পঞ্চগড় শহর থেকে মোটরসাইকেলযোগে পঞ্চগড়-ভাউলাগঞ্জ সড়ক দিয়ে দুপুর পৌনে ১২টার দিকে বাড়ি ফিরছিলেন মিলন। এ সময় একই দিক থেকে যাওয়া পঞ্চগড় পৌরসভার একটি ময়লাবাহী দ্রুতগতির ট্রাক তাঁকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেলসহ সড়কের ওপর ছিটকে পড়েন মিলন এবং ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ ও পঞ্চগড় ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠান। ঘটনার পরপরই ট্রাকটি ফেলে চালক ও তাঁর সহকারী পালিয়ে যান।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু আককাস আহমদ পৌরসভার ট্রাকের ধাক্কায় ওই মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের লাশ তাঁর স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
পঞ্চগড় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত বলেন, নিহত মিলন মিয়া তাঁর পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে ওই পরিবারের দায়িত্ব নিতে পৌরসভার প্রতি দাবি ওঠে। এ ছাড়া ওই এলাকায় পৌরসভার ময়লার ভাগাড়টি থেকে দুর্গন্ধ ছড়ানোয় সেটি ঢেকে দেওয়ার ব্যবস্থাসহ সকাল সাতটার আগেই ময়লা ফেলা শেষ করার দাবিতে স্থানীয় লোকজন সড়ক অবরোধ করেন। পরে পৌর মেয়রের সঙ্গে কথা বলে দাবিগুলো মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন