default-image

পঞ্চগড়ে পুকুরের পানিতে ডুবে মো. আবদুল্লাহ নামে দেড় বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আজ বুধবার সকালে পঞ্চগড় সদর উপজেলার চাকলাহাট ইউনিয়নের শিংরোড-দক্ষিণ খালপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আবদুল্লাহ ওই এলাকার রাশেদুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশ ও মারা যাওয়া শিশু আবদুল্লাহর পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দেড় বছর বয়সী আবদুল্লাহকে গ্রামের বাড়িতে দাদা-দাদির কাছে রেখে ঢাকায় পোশাক কারাখানায় কাজ করতেন রাশেদুল ইসলাম ও ফাতেমা বেগম দম্পতি। বুধবার সকালে শিশুটির দাদা আইয়ুব আলী বাড়ি আঙ্গিনায় বাঁশের বেড়া তৈরি করছিলেন। এ সময় আবদুল্লাহ একটি বল নিয়ে পাশেই খেলছিল। এর কিছুক্ষণের মাথায় হঠাৎ করেই শিশুটিকে খুঁজে পাচ্ছিল না পরিবারের লোকজন। কিছুক্ষণ খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে তাকে বাড়িসংলগ্ন পুকুরের পানিতে ভাসতে দেখেন পরিবারের সদস্যরা। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় শিশুটিকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

মারা যাওয়া শিশুটির দাদা (বাবার চাচা) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘রাশেদুল ও তাঁর স্ত্রী দুজনেই ঢাকায় পোশাক কারখানায় কাজ করেন। তাঁদের একমাত্র শিশুটিকে ঢাকায় দেখাশোনার মতো কেউ নেই। এ জন্যই প্রায় আট মাস আগে শিশুটিকে তাঁরা দাদা-দাদির কাছে রেখে যান। শিশুটি এখানে অনেক আদরেই বড় হচ্ছিল। সকালে সম্ভবত খেলনা বলের পেছনে দৌড়াতে গিয়ে সে পুকুরে পড়ে গেছে। হঠাৎ করে এমন ঘটনায় আমাদের পুরো পরিবারের লোকজকে শোকাহত করেছে। ওর (শিশুটির) বাবা-মা খবর পেয়ে লকডাউনের মধ্যেই বাড়ির পথে রওনা হয়েছে।’

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসক রাফি মোজ্জামেল বলেন, ‘শিশুটিকে আমরা মৃত অবস্থায় হাসপাতালে পেয়েছি। শিশুটি পানিতে ডুবে গিয়েছিল বলে তার সঙ্গে আসা স্বজনদের কাছে জেনেছি।’

পঞ্চগড় সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন