default-image

পটুয়াখালীতে কোভিড-১৯ রোগে একজন এবং এ রোগের উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আজ রোববার সকালে একজন ঢাকায় এবং গতকাল শনিবার গভীর রাতে অপরজন পটুয়াখালীতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

গতকাল রাতে পটুয়াখালীর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে কোভিড-১৯ রোগের উপসর্গ নিয়ে ৬৫ বছরের এক ব্যক্তি মারা যান। তাঁর বাড়ি জেলার গলাচিপা উপজেলার চিকনিকান্দি ইউনিয়নে।

পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন, ওই ব্যক্তি কয়েক দিন ধরে জ্বর ও হাঁচি–কাশিতে ভুগছিলেন। গত শুক্রবার ওই ব্যক্তিকে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। ওই দিনই তাঁর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। গতকাল দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই ব্যক্তি মারা যান।

কোভিড-১৯ প্রটোকল অনুযায়ী তাঁর সৎকার করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তিনি কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন কি না, তা নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন আসার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে।

এদিকে কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত কলাপাড়া পৌর শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. রুহুল আমীন (৫২) ঢাকায় ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকাল সাতটার সময় মারা গেছেন। তাঁর পারিবারিক বন্ধু এস এম শহীদুল ইসলাম ফকু জানান, রুহুল আমীনের ডায়াবেটিসহ কিছু শারীরিক সমস্যা ছিল। এ অবস্থায় ১৮ জুলাই তাঁর শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। শনাক্ত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে কলাপাড়া থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়া হয় এবং ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক প্রথম আলোকে বলেন, প্রটোকল অনুযায়ী তাঁর জানাজা এবং দাফন সম্পন্ন হবে। এ ছাড়া তাঁর কলাপাড়া পৌর শহরের বাসভবন লকডাউন করা হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন