default-image

কোভিড-১৯ রোগের উপসর্গ থাকা ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করতেন স্বাস্থ্যকর্মী আবদুস সাত্তার (৬০)। নমুনা সংগ্রহের একপর্যায়ে নিজেই করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হন। শেষ পর্যন্ত আজ সোমবার দুপুরে নিজ বাড়িতে মারা গেলেন করোনাযোদ্ধা সাত্তার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা খালিদ সাইফুল্লাহ।

আবদুস সাত্তার পত্নীতলা উপজেলা সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) বিভাগে মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পদে চাকরি করতেন। দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার শুরু থেকেই সন্দেহভাজন রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করে আসছিলেন তিনি।

স্বাস্থ্য কর্মকর্তা খালিদ সাইফুল্লাহ জানান, শুরু থেকেই দৃঢ় মনোবল নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে নমুনা সংগ্রহের কাজ করে আসছিলেন আবদুস সাত্তার। কোভিড-১৯ রোগের উপসর্গ দেখা দেওয়ায় ৬ জুলাই তাঁর নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরপর থেকে নিজ বাড়ি উপজেলা দক্ষিণ হোসেনপুরে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন আবদুস সাত্তার। ১০ জুলাই নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ আসে। আজ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে তীব্র শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে স্বজনেরা তাঁকে হাসপাতালে নেওয়ার চেষ্টা করেন। অ্যাম্বুলেন্সে তোলার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লিটন সরকার বলেন, ‘করোনা প্রতিরোধে আবদুস সাত্তার শুরু থেকেই সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে কাজ করছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। ইসলামি ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবী দলের সহায়তায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁর লাশ দাফন করা হবে।’

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন