বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কর্মসূচিতে মৌচাক স্কাউট স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মৌচাক আইডিয়াল, শাহজাহান আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ, কোনাবাড়ী ডিগ্রি কলেজসহ আশপাশের বিভিন্ন স্কুল, কলেজের শিক্ষার্থীসহ কয়েক শ মানুষ অংশ নেন।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা জানান, পদচারী–সেতু না থাকায় প্রায় এখানে দুর্ঘটনা ঘটছে। মহাসড়কের দুই পাশেই রয়েছে বেশ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এখানে প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষার্থীরা স্কুলে যান। শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক পার হতে গিয়ে মাঝেমধ্যে শিকার হন দুর্ঘটনায়। পদচারী–সেতুর জন্য সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবর বেশ কয়েকবার স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। দুর্ঘটনা এড়াতে ও ছাত্রছাত্রীদের নিরাপদ চলাচলের জন্য পদচারী–সেতু অবশ্যই প্রয়োজন। এ জন্য দ্রুত সময়ের মধ্যে ফুটওভারব্রিজ নির্মাণের দাবি জানান শিক্ষার্থীরা।

সালনা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ হোসেন বলেন, পদচারী–সেতুর দাবিতে শিক্ষার্থীরা মৌচাক এলাকায় মানববন্ধন করেন। পরে মহাসড়কে অবস্থান নিলে হাইওয়ে পুলিশ, প্রশাসন অনুরোধে অবরোধ তুলে নেয়। এতে কিছু সময় যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। তবে এখন যান চলাচল স্বাভাবিক।

সওজ গাজীপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাইফুদ্দিন বলেন, তিনটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেন প্রকল্পের কাজ চলছে। কাজ প্রায় শেষের দিকেই। ওই প্রকল্পের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন এলাকায় একাধিক পদচারী–সেতু নির্মাণ করা হবে। এরই মধ্যে কয়েকটি নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন