বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এর আগে মাছ দুটি আজ ভোরে মানিকগঞ্জের হরিরামপুর এলাকার পদ্মা নদীতে জেলে রতন হালদারের জালে ধরা পড়ে। চিতল মাছটি জেলে রতন হালদার ১ হাজার ৫৫০ টাকা কেজি এবং বাগাড় মাছটি ১ হাজার ২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেন। দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকার মৎস্য ব্যবসায়ী শাহজাহান শেখ মাছ দুটি কিনে নেন।

পরে গাজীপুরের মাওনা এলাকার এক শিল্পপতির কাছে ১ হাজার ৬০০ টাকা কেজি দরে ১৯ হাজার ২০০ টাকায় চিতল এবং ১ হাজার ১০০ টাকা কেজি দরে ২২ হাজার টাকায় বাগাড় মাছ বিক্রি করেন।

দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ফেরিঘাট এলাকার শাকিল-সোহান মৎস্য আড়তের স্বত্বাধিকারী শাহজাহান শেখ বলেন, ‘বড় মাছ পাওয়ায় জেলেরা খুশি, ব্যবসায়ী হিসেবে আমরাও খুশি। চিতল মাছ সাধারণত ৪-৫ কেজির পাওয়া যায়। পদ্মা নদীর ১০-১২ কেজির চিতল খুব কমই পাওয়া যায়। ১২ কেজি ওজনের চিতলটি ১ হাজার ৫৫০ টাকা কেজি দরে কেনার পর বিভিন্নজনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে থাকি। পরে গাজীপুরের মাওনা এলাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে ১ হাজার ৬০০ টাকা কেজি দরে মোট ১৯ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি করেছি।’ মাছ দুটি দুপুরের আগেই গাজীপুর পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন