বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে ফরিদপুর সদরের ডিক্রির চর ইউনিয়নের মদনখালীর নাজির বিশ্বাসের ডাঙ্গী এলাকায় একটি পন্টুনের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে ট্রলারটি ডুবে যায়। ওই ট্রলারে ফরিদপুর শহরের বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ১৫ শিক্ষক ছিলেন। এর মধ্যে মাঝিসহ ট্রলারের মোট ১৪ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে।

ফরিদপুর ফায়ার সার্ভিসের জ্যেষ্ঠ স্টেশন কর্মকর্তা সুভাষ বাড়ৈ বলেন, আজ সকালে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের পাটুরিয়া থেকে পাঁচ সদস্যের একটি ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযানে ফরিদপুর এসেছে। তারা সকাল আটটা থেকে কাজ শুরু করেছে। তবে এখন পর্যন্ত নিখোঁজ ওই দুই শিক্ষকের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। বৃষ্টির মধ্যেও উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে। আজ সন্ধ্যা পর্যন্ত উদ্ধার অভিযান চলবে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শহরের বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ১৫ শিক্ষক একটি ট্রলারে ভাড়া করে গতকাল বিকেলে নৌভ্রমণে বের হন। বিকেল চারটার দিকে ট্রলারটি ফরিদপুর সদরের চর মাধবদিয়া ইউনিয়নের খলিল মণ্ডলের হাট থেকে ধলার মোড়ের উদ্দেশে রওনা দেয়।

ট্রলারটি বিকেল পাঁচটার দিকে নাজির বিশ্বাসের ডাঙ্গী মদনখালীর মাথায় একটি পন্টুনে গিয়ে থামে। এ সময় ওই পন্টুনে শিক্ষকেরা নামাজ আদায় করেন। সেখান থেকে ট্রলারে ওঠার পরপরই ট্রলারের ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। ট্রলারটি স্রোতের টানে মুহূর্তের মধ্যে ডুবে গিয়ে পন্টুনের নিচে চলে যায়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন