default-image

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার বাহির চর দৌলতদিয়া এলাকায় পদ্মা নদীতে জেলেদের জালে ২৫ কেজি ওজনের একটি বড় বাগাড় মাছ ধরা পড়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার শেষ রাতের দিকে মাছটি ধরা পড়ে।

দৌলতদিয়া ঘাট এলাকার ব্যবসায়ীরা জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে দৌলতদিয়ার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ওয়াছেল ব্যাপারী, আক্কাছ ব্যাপারী ও বাবু ব্যাপারীসহ কয়েকজন জেলে জাল দিয়ে নদীতে মাছ ধরতে যান। শেষ রাতের দিকে তাঁদের জালে বাগাড় মাছটি ধরা পড়ে। শুক্রবার সকালে মাছটি দৌলতদিয়া ঘাট টার্মিনালসংলগ্ন মাছ বাজারের মকু মোল্লার আড়তে আনা হয়। মকু মোল্লার ছেলে রওশন মোল্লা ওজন দিয়ে দেখেন বাগাড়টির ওজন প্রায় ২৫ কেজি। রওশন মোল্লা নিলামে মাছটির ডাক হাঁকতে থাকেন। দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকার চাঁদনি-আরিফা মৎস্য আড়তের ব্যবসায়ী চান্দু মোল্লা নিলামে অন্যদের সঙ্গে শরিক হয়ে ৯০০ টাকা কেজি দরে ২২ হাজার ৫০০ টাকায় মাছটি কিনে নেন।

বিজ্ঞাপন

চান্দু মোল্লা বলেন, মাছটি ফেরিঘাটের পন্টুনের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছে। ঢাকার বিভিন্ন পরিচিত ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। ২৫ থেকে ২৬ হাজার টাকা হলেই মাছটি বিক্রি করে দেবেন।

জেলে ওয়াছেল ব্যাপারী জানান, এই মৌসুমে তিনি এত বড় মাছ প্রথমবার পেয়েছেন। এর আগে ছোট-বড় পাঙাশসহ বিভিন্ন ধরনের মাছ পেয়েছিলেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে গোয়ালন্দ উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তা রেজাউল শরীফ বলেন, প্রায়ই পদ্মায় বড় পাঙাশ, বাগাড় ও রুই মাছ ধরা পড়ছে। এসব মাছ সংরক্ষণ করা গেলে সবচেয়ে ভালো হতো। বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় পদ্মা নদীতে অভয়াশ্রম করার প্রস্তাব রাখা হয়েছে। এটি করতে পারলে দেশীয় প্রজাতির মাছের কোনো অভাব থাকবে না। এই মৌসুমে এ ধরনের অনেক বড় মাছ পাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

মন্তব্য পড়ুন 0