বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় মৎস্যজীবীরা জানান, প্রতিদিনের মতো আজ বুধবার ভোররাতের দিকে জাল নিয়ে নদীতে মাছ ধরতে নামেন বাহির চর দৌলতদিয়া ছাত্তার মেম্বারপাড়ার জেলে হজরত চালাক ও তাঁর চাচাতো ভাই বাবু চালাক। প্রথমবার জাল ফেলে তেমন কোনো মাছ পাননি। সকাল সাতটায় প্রথমে হজরত চালাকের জালে একটি বড় কাতল মাছ ধরা পড়ে। পরে চাচাতো ভাই বাবু চালাকের জালেও প্রায় সমান আকৃতির আরেকটি কাতল মাছ ধরা পড়ে। মাছ দুটি পাওয়ার পর তাঁরা স্থানীয় মৎস্য ব্যবসায়ীদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেন। পরে প্রকাশ্য নিলামে দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ফেরিঘাট এলাকার শাকিল-সোহান মৎস্য আড়তের স্বত্বাধিকারী শাহজাহান শেখ মাছ দুটি কিনে নেন।

কয়েক দিন আগে বাগাড়জাতীয় মাছ বেশি পাওয়া গেছে। বর্তমানে পাঙাশ আর কাতল বেশি করে পাওয়া যাচ্ছে। পদ্মা নদীর বড় মাছের চাহিদা সব সময় বেশি থাকে। তাই এ ধরনের মাছ পাওয়ার পর বিক্রির জন্য কোনো বেগ পোহাতে হয় না।
হজরত চালাক, জেলে

মৎস্য ব্যবসায়ী মো. শাহজাহান শেখ বলেন, ভোরেই হজরত চালাক তাঁকে মুঠোফোনে দুটি বড় কাতল মাছ পাওয়ার খবর দেন। হজরত চালাক ও তাঁর চাচাতো ভাই বাবু চালাক প্রায় ৩২ কেজি ওজনের কাতল মাছ দুটি প্রকাশ্য নিলামে তুললে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ১ হাজার ৩০০ টাকা কেজি দরে সাড়ে ৪১ হাজার টাকায় কিনে নেন তিনি। কাতল দুটি তাজা থাকায় ফেরিঘাটের পন্টুনের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে রাখেন। পরে বিক্রির জন্য ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকার পরিচিতজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে থাকেন। পরবর্তী সময়ে গাজীপুরের কাপাসিয়া এলাকার একটি পোশাক কারখানার মালিক রায়হান উদ্দিনের কাছে কাতল মাছ দুটি ১ হাজার ৩৫০ টাকা কেজি দরে মোট ৪৩ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন। মাছ দুটিকে মোটরসাইকেলযোগে পাঠানো হয়েছে।

জেলে হজরত চালাক বলেন, ইদানীং মাঝেমধ্যেই বড় বড় কাতল ও পাঙাশ মাছ পাওয়া যাচ্ছে। কয়েক দিন আগে বাগাড়জাতীয় মাছ বেশি পাওয়া গেছে। বর্তমানে পাঙাশ আর কাতল বেশি করে পাওয়া যাচ্ছে। বড় বড় মাছ পাওয়া গেলে জেলেরা যেমন আনন্দিত হন, পাশাপাশি মৎস্য ব্যবসায়ীরাও অনেক খুশি হন। পদ্মা নদীর বড় মাছের চাহিদা সব সময় বেশি থাকে। তাই এ ধরনের মাছ পাওয়ার পর বিক্রির জন্য কোনো বেগ পোহাতে হয় না। তবে বাইরের খরিদ্দারদের কাছে জেলেরা সরাসরি মাছ বিক্রি করতে পারলে বেশি দাম পেতে পারতেন।

গোয়ালন্দ উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তা মো. রেজাউল শরীফ বলেন, পদ্মা নদীতে প্রায়ই বড় বড় মাছ পাওয়া যাচ্ছে। তবে হঠাৎ কয়েক দিন ধরে পদ্মা নদীতে পানি কিছুটা বাড়তে থাকায় বড় মাছ এখন তুলনামূলক কম ধরা পড়ছে। পানি কমতে থাকলে আরও বড় মাছ ধরা পড়বে বলে তিনি মনে করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন