খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে দেশ স্বাধীন হয়েছিল, বাংলাদেশ বিজয় লাভ করেছিল। ঠিক তেমনি ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দিন বাঙালি জাতির আরেকটি বড় বিজয়ের দিন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর জনগণ যেভাবে আনন্দ করেছিল, একইভাবে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দিন দেশের মানুষ আনন্দ করবে।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ বন্ধের জন্য অনেক ধরনের ষড়যন্ত্র হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারকে অপমান করা হয়েছে। নিজেদের টাকায় পদ্মা সেতু নির্মাণের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রমাণ করে দিয়েছেন, বাঙালি জাতি কারও কাছে মাথা নত করতে পারে না।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে যখন শান্তি বিরাজ করছে, তখন দেশকে অস্থিতিশীল করতে পাঁয়তারা করছে একটি চক্র। পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দিনে কেউ যেন দেশকে অস্থিতিশীল করতে না পারে, সেদিকে নেতা-কর্মীদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানান তিনি।

নিয়ামতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবদুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নিয়ামতপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুস সালাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে খাদ্যমন্ত্রী উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয় থেকে আসা ৫০ জন ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর শিক্ষার্থীকে সাইকেল ও ৩৫০ জন শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তির টাকা বিতরণ করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন