বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে ভারতীয় সীমান্ত থেকে বাংলাদেশের ২০০ গজ ভেতরে স্থানীয় লোকজন ওই যুবকের লাশ দেখতে পান। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। সীমান্ত অতিক্রমের সময় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে ওই যুবকের মৃত্যু হতে পারে বলে পুলিশ ও বিজিবি প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে।

এ ব্যাপারে রাজশাহীর দামকুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব হোসেন বলেন, নিহত মিঠুনের নামে চোরাচালানের কোনো মামলা নেই। তবে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে জানিয়েছেন, ওই যুবক গরু পারাপারের উদ্দেশে মাঝেমধ্যে বাংলাদেশের সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে যাতায়াত করতেন। ধারণা করা হচ্ছে, সীমান্ত অতিক্রমের সময় বিএসএফের গুলিতে ওই যুবকের মৃত্যু হতে পারে। সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে বিজিবি রাজশাহী-১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাব্বির আহমেদ বলেন, মিঠুন চরে ভাড়ায়চালিত মোটরসাইকেলের চালক ছিলেন। তিনি বিএসএফের গুলিতে নিহত হয়েছেন কি না, সেটি এখনো নিশ্চিত নয়। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। যেহেতু ঘটনাস্থলটি বাংলাদেশের ভেতরে, তাই বিষয়টি পুলিশ নিশ্চিত করবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন