বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রোববারের নির্বাচনে মৃদুল চৌধুরী ২২ ভোট বেশি পেয়ে জয়লাভ করেন। মৃদুলের প্রাপ্ত ভোট ২৫৪। আর বাবলু চৌধুরীর প্রাপ্ত ভোট ২৩২। মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে মৃদুল চৌধুরী পরাজিত প্রার্থী বাবলু চৌধুরীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে তাঁর বাড়িতে যান। এ সময় মৃদুলকে দেখে বাবলু চৌধুরীর বাড়ির লোকজন ক্ষুব্ধ হন। এ সময় মৃদুল চৌধুরী তাঁদের শান্ত হতে বলেন। কিন্তু একপর্যায়ে বাবলুর চাচাতো ভাই টাবলু চৌধুরী লাঠি নিয়ে মৃদুলের দিকে তেড়ে আসেন। তখন মৃদুল বাধা দিতে গেলে তাঁকে লাঠি দিয়ে মাথাসহ শরীরে আঘাত করেন টাবলু। এতে তিনি গুরুতর আহত হন।

রোববারের নির্বাচনে মৃদুল চৌধুরী ২২ ভোট বেশি পেয়ে জয়লাভ করেন। মৃদুলের প্রাপ্ত ভোট ২৫৪। আর বাবলু চৌধুরীর প্রাপ্ত ভোট ২৩২।

পরে স্থানীয় লোকজন মৃদুল চৌধুরীকে উদ্ধার করে খালিয়াজুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে বিকেলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় তাঁকে। বর্তমানে তিনি ওই হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

মৃদুল চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, ‘নির্বাচনে জয়-পরাজয় থাকবেই। আমরা একই গ্রামের বাসিন্দা। আপদে-বিপদে একসঙ্গে আছি। জনগণের ভোটে নির্বাচনে জয়ী হয়ে বাবলুর বাড়িতে গিয়েছিলাম সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে। কিন্তু তাঁর বাড়ির লোকজন আমাকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছেন।’

এ ব্যাপারে জানতে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে বাবলু ফোন ধরেননি। তবে অভিযুক্ত চাচাতো ভাই টাবলু বলেন, ‘মৃদুল চৌধুরী সৌজন্য সাক্ষাতের নামে আমাদের উপহাস করতে এসেছিলেন। তাঁর সঙ্গে থাকা লোকজন বিভিন্ন ধরনের উসকানিমূলক কথাবার্তা বলেছেন। মৃদুল চৌধুরী কীভাবে আহত হয়েছেন, তা আমার জানা নেই।’

খালিয়াজুরী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জিকরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। এ নিয়ে থানায় এখনো কেউ লিখিত অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন