বিজ্ঞাপন

করোনায় সেশনজটে শিক্ষাজীবন এমনিতেই চরম অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে। করোনা সংক্রমণ কিছুটা কমে আসায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় উদ্যোগ নিয়েছিল সশরীর ফাইনাল পরীক্ষা নেওয়ার। গত ২৪ জুন স্থগিত হওয়া চূড়ান্ত পর্বের (সেমিস্টার ফাইনাল) পরীক্ষা সশরীর শুরু হয়। দেশব্যাপী কঠোর বিধিনিষেধ আরোপের কারণে ২৭ জুন পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। এমন অবস্থায় পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীরা আটকা পড়ে বিপাকে পড়েন। একে তো হলে থাকার সুযোগ নেই, তার ওপর বিধিনিষেধে সব যান চলাচল বন্ধ। তাই বাড়িতে যেতে পারছেন না এ শিক্ষার্থীরা।

আইন বিভাগের শিক্ষার্থী রিফাত সারওয়ার খান বলেন, ‘ডিপার্টমেন্টের শিক্ষকেরা বলেছিলেন, এই বছরের মার্চে পরীক্ষা হবে, কিন্তু আবার কঠোর বিধিনিষেধের কারণে নাস্তানাবুদ হয়ে বাড়ি ফিরে যেতে হয়েছিল। তারপর আবার পরীক্ষার রুটিন দিয়ে দেওয়া হয় জুনে। সবাইকে বরিশাল আসতে বলা হলো, আমরাও এলাম, আবার বাসাভাড়া নিলাম, পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এমন সময় কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হওয়ায় পরীক্ষা বন্ধ হয়ে গেল। এখন বাড়ি যাওয়া নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় আছি। অবশেষে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়ায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে।’

এ নিয়ে ৫ জুলাই‌ ‘পরীক্ষা দিতে এসে আটকা পড়া শিক্ষার্থীরা বাড়ি ফিরতে গাড়ি চান’ শিরোনামে প্রথম আলোয় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন