পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে বাসের ধাক্কায় শিক্ষক নিহত

নিহত আবদুল হক
ছবি: সংগৃহীত

কামিল পরীক্ষা দিয়ে মোটরসাইকেলে করে বাড়ি ফিরছিলেন আবদুল হক। পথে বাসের ধাক্কায় প্রাণ যায় মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এই শিক্ষকের।

আজ রোববার দুপুরে রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের রাজবাড়ী সদর উপজেলার চরবাগমারা পল্লী বিদ্যুৎ কার্যালয় এলাকার কালার দোয়াল নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

আবদুল হক রাজবাড়ী সদর উপজেলার চন্দনী ইউনিয়নের আফড়া গ্রামের মাজহারুল হকের ছেলে। উপজেলার বার্থা উচ্চবিদ্যালয়ের এই সহকারী শিক্ষক (ধর্ম) এবার কামিল পরীক্ষা দিচ্ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আবদুল হক রাজবাড়ী শহর থেকে মোটরসাইকেলে করে বাড়ি ফিরছিলেন। বেলা আড়াইটার দিকে পথে চরবাগমারা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি এলাকায় কালার দোয়াল নামক স্থানে পৌঁছালে বিপরীত থেকে আসা একটি বাস তাঁকে চাপা দেয়। ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। বিক্ষুব্ধ জনতা রাজবাড়ী ডিলাক্স (ঢাকা মেট্টো ব ১১-০০২৭) নামে যাত্রীবাহী বাসটি আটক করে।

বার্থা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আককাস আলী বলেন, আবদুল হক ২০১২ সালে সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। এবার আবদুল হক কামিল পরীক্ষা দিচ্ছিলেন। শ্রীপুর লজ্জাতুন্নেছা কামিল মাদ্রাসায় আজ তাঁর আল হাদিস পরীক্ষা ছিল। আবদুল হক শিক্ষক হিসেবে খুব সজ্জন ও অমায়িক ব্যবহারের অধিকারী ছিলেন। তাঁর অকাল মৃত্যুতে সবাই শোকাহত।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পাংশা হাইওয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সালাউদ্দিন মোল্লা বলেন, মোটরসাইকেল ও বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে মোটরসাইকেল আরোহী ঘটনাস্থলেই মারা যান। বাসটি জব্দ করা হয়েছে। তবে বাসের চালক ও সহকারীরা পালিয়ে গেছেন।