বিজ্ঞাপন

থানা-পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ সকাল নয়টার দিকে পারিবারিক কলহের জের ধরে বাড়িতে আবদুস সালামের স্ত্রীর সঙ্গে তাঁর মায়ের ঝগড়া হয়। আবদুস সালাম ঝগড়া থামানোর চেষ্টা করছিলেন। একপর্যায়ে আবদুস সালাম তাঁর স্ত্রীকে লাঠির আঘাত করতে গেলে তাঁর মায়ের মাথায় লাগে।

ওই ঘটনার পর আবদুস সালাম বাড়ি থেকে বের হয়ে আসেন। দুপুর ১২টার পর বাড়ি থেকে প্রায় ৩০০ গজ দূরে একটি ভিটায় থাকা আমগাছে এক ব্যক্তিকে ঝুলতে দেখে ওই গ্রামের দুই শিশু। তারা গ্রামের লোকজনকে ঘটনাটি জানায়। গ্রামের লোকজন এসে আবদুস সালামকে আমগাছে ঝুলতে দেখে পুলিশকে জানান। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আবদুস সালামের লাশটি উদ্ধার করে।

স্থানীয় আটাপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবু সালেহ মো. সামছুল আরেফিন প্রথম আলোকে বলেন, আবদুস সালাম ভ্যান চালিয়ে সংসার চালান। আজ সকালে পারিবারিক দ্বন্দ্বে স্ত্রীকে মারতে গেলে তাঁর মায়ের মাথা জখম হয়। এ ঘটনা আবদুস সালাম সহ্য করতে পারেনি। অনুশোচনায় আমগাছে উঠে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব প্রথম আলোকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আবদুস সালাম অনুশোচনা থেকে আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন