প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

করোনাকালে প্রায় পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর সিলেট-ঢাকা রুটে চলাচল শুরু করেছে আন্তনগর পারাবত এক্সপ্রেস। আজ রোববার বেলা ৩টা ৪৫ মিনিটে সিলেট থেকে ২৭৪ যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় পারবত এক্সপ্রেস।

এর আগে করোনাকালে সিলেট, ঢাকা ও চট্টগ্রাম রুটে এক জোড়া ট্রেন চলাচল করত। এখন এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে আরও একটি। এ নিয়ে সিলেট-ঢাকা রুটে দুটি এবং চট্টগ্রাম রুটে একটি ট্রেন চলাচল করবে।

বিজ্ঞাপন

সিলেট রেলওয়ে স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতির কারণে গত ২৪ মার্চ থেকে সারা দেশে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সে সময় থেকে বন্ধ ছিল পারাবত এক্সপ্রেস। ৩১ মে প্রথম দফায় রেলওয়ে আট জোড়া আন্তনগর ট্রেন চালুর পর সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ট্রেনের কোচের মোট আসনের শতকরা ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে সিলেট-ঢাকা ও সিলেট-চট্টগ্রাম রুটে যথাক্রমে কালনী এক্সপ্রেস ও পাহাড়িকা এক্সপ্রেস চলাচল শুরু করে। করোনার কারণে বন্ধ করে দেওয়া হয় স্টেশনগুলো থেকে ট্রেনের টিকিট বিক্রি। বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমে চলছে ট্রেনের টিকিট বিক্রি।

সূত্র জানায়, ট্রেনের নির্দিষ্ট বন্ধের দিনগুলো ছাড়া সিলেট থেকে ঢাকাগামী কালনী এক্সপ্রেস প্রতিদিন সকাল ৬টা ১৫ মিনিটে এবং চট্টগ্রামগামী পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ১০টা ১৫ মিনিটে চলাচল করছে। আজ সকালে নির্দিষ্ট সময়ে সিলেট থেকে ঢাকাগামী কালনী এক্সপ্রেস ১৬৬ যাত্রী নিয়ে যাত্রা করে এবং চট্টগ্রামগামী পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ২৭০ যাত্রী নিয়ে যাত্রা করে।

বিজ্ঞাপন

সিলেট রেলওয়ে স্টেশনের ব্যবস্থাপক মো. খলিলুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, করোনাকালে সিলেট থেকে এক জোড়া আন্তনগর ট্রেন চলাচল করলেও আজ থেকে পারাবত এক্সপ্রেসের চলাচল শুরু হয়েছে। ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পারাবত এক্সপ্রেস আজ বেলা একটায় সিলেটে পৌঁছায়। পরবর্তী সময়ে সিলেট থেকে বেলা ৩টা ৪৫ মিনিটে ২৭৪ যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করে পারাবত এক্সপ্রেস।

খলিলুর রহমান জানান, পরবর্তী সময়ে ক্রমান্বয়ে আগের মতো সিলেট-ঢাকা ও চট্টগ্রাম রুটে ট্রেন চলাচল শুরু করা হবে বলে জানা গেছে। তবে সেটি কবে নাগাদ, তা এখনো জানানো হয়নি। রেল মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে অনলাইনের মাধ্যমে টিকিট বিক্রি অব্যাহত রাখা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন