default-image

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলা শহরের পারনারায়ণপুর গ্রামে গত রোববার মারা যাওয়া তরুণের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ওই তরুণের নাম মো. জীবন (২৬)। তিনি ওই গ্রামের মৃত নাজিম উদ্দিনের ছেলে। আজ বুধবার তাঁর নমুনা পরীক্ষার ফল পাওয়া যায়। এ নিয়ে রাজবাড়ীতে মারা যাওয়া মোট ছয়জনের এ ভাইরাস শনাক্ত হলো।

সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে জানা গেছে, ১২ জুলাই ৮৮ জনের নমুনা পাঠানো হয়। নমুনা পরীক্ষার ফলাফল আজ পৌঁছায়। এতে ২৩ জনের পজিটিভ এসেছে। এঁদের মধ্যে রাজবাড়ী সদর উপজেলায় আটজন, পাংশা উপজেলায় ছয়জন, গোয়ালন্দ উপজেলায় তিনজন, বালিয়াকান্দি উপজেলায় পাঁচজন ও কালুখালী উপজেলায় একজন রয়েছেন। জেলায় মোট নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৫ হাজার ৬১৭টি। নমুনা পরীক্ষার ফলাফল এসেছে ৫ হাজার ৪৪১টি। ফলাফল অপেক্ষমাণ রয়েছে ১৭৬টি। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৯১ জন। মারা গেছেন ছয়জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৩৬ জন। হোম আইসোলেশনে আছেন ৩২৬ জন।

পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জিয়াউল হোসেন জানান, জীবন ঢাকায় থাকতেন। তিনি জ্বরসহ করোনার অন্যান্য উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে আসেন। এরপর বাড়ি থেকে আর বের হননি। প্রতিবেশীরাও কেউ তাঁর অসুস্থতার কথা জানতেন না। রোববার তিনি মারা যান। বিষয়টি জানতে পেরে জীবন ও তাঁর মা রাহেলা বেগমের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আজ তাঁদের নমুনার ফল এসেছে। এতে জীবনের নমুনার ফল পজিটিভ এসেছে। তবে তাঁর মায়ের নেগেটিভ এসেছে। করোনার প্রটোকল মেনে জীবনের দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0