নারায়ণগঞ্জ শহরের বাইতুস সালাত জামে মসজিদের উত্তর পাশে খনন করা সড়ক মাটি দিয়ে ভরাট করে দিচ্ছেন তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের শ্রমিকেরা
নারায়ণগঞ্জ শহরের বাইতুস সালাত জামে মসজিদের উত্তর পাশে খনন করা সড়ক মাটি দিয়ে ভরাট করে দিচ্ছেন তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের শ্রমিকেরাপ্রথম আলো

নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদের সামনের সড়কে গ্যাসের পাইপলাইনে আর কোনো লিকেজ পায়নি তিতাস গ্যাস। শুক্রবার রাতে ও শনিবার সকালে তিতাস গ্যাসের দল ঘটনাস্থল ঘুরে কোনো লিকেজের সন্ধান পায়নি। সকালে তিতাসের শ্রমিকেরা মসজিদের উত্তর পাশের খোঁড়া সড়ক মাটি দিয়ে বন্ধ করে দিয়েছেন। ওই এলাকায় মাটি থেকে বুদ বুদ বের হওয়ার বিষয়ে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের ধারণা, ময়লা আবর্জনা থেকে সৃষ্ট গ্যাস এভাবে বের হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার বিকেল সোয়া তিনটার দিকে শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদের পূর্ব পাশের সড়কে কাদা মাটির পানির ভেতর থেকে গ্যাসের মতো বুদ বুদ উঠতে শুরু করে। প্রায় ঘণ্টাখানেক ওই সড়কে বুদ বুদের সঙ্গে গ্যাসের ঝাঁজালো গন্ধ বের হতে থাকে। ওই ঘটনায় এলাকার লোকজনের মধ্যে গ্যাস লিকেজের আতঙ্ক দেখা দেয়।


স্থানীয় বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন বলেন, বিস্ফোরণের ওই ঘটনায় ৩১ জনের প্রাণ গেছে। এখন সামান্য গ্যাসের বুদ বুদ দেখলে ভয় লাগে। তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের উচিত মসজিদের আশপাশের এলাকার পাইপলাইনগুলো ভালো করে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা।

বিজ্ঞাপন

মসজিদ কমিটির সভাপতি আবদুল গফুর প্রথম আলোকে বলেন, ‘শুক্রবার আমি মসজিদে যাইনি। শুনেছি মাটির ভেতর থেকে গ্যাসের বুদ বুদ বের হয়েছিল। পরে আর বুদ বুদ বের হয়নি।’


এ বিষয়ে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড নারায়ণগঞ্জ অফিসের উপমহাব্যবস্থাপক মফিজুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, গ্যাস লিকেজের খবর পেয়ে শুক্রবার রাতে ও শনিবার সকালে একাধিক জরুরি দল সেখানে যায়। কিন্তু তাঁরা গ্যাসের পাইপলাইনে কোনো লিকেজ পাননি। গ্যাসের লিকেজ হলে সেটি দিয়ে অনবরত গ্যাস বের হতো। কী কারণে ওই বুদ বুদ বের হলো—জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘পয়োনিষ্কাশন ড্রেনে জমে থাকা ময়লা-আবর্জনা থেকে সৃষ্ট গ্যাস বের হয়েছে। সেখানে গ্যাসের লিকেজ থাকলে অনবরত গ্যাস বের হতো। আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।’


৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণে এক শিশুসহ ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর দগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৫ জন।

মন্তব্য পড়ুন 0