বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ঘটনাটি মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের খাইছড়া চা-বাগানের একটি এলাকার। গতকাল মঙ্গলবার এই পাখির ছানা ধরা ও ছানাদের মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। পাখির ছানাগুলো ছিল কালো কোমর কাঠঠোকরার। এর ইংরেজি নাম ব্ল্যাক রাম্পড ফ্লেইমব্যাক। সারা দেশেই পাখিটি কমবেশি দেখা যায়। স্থানীয়ভাবে অনেকে এটিকে ‘গাছঠুকরি’ বলে।

এসইডব্লিউ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুরে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও বন্য প্রাণীর আলোকচিত্রী খোকন থৌনাউজমের কাছে পাখির ছানা ধরার খবর আসে। পরে তিনি ঘটনাস্থলে ছুটে যান। গিয়ে দেখেন, শিশুরা তিনটি ছানা পলিথিনের ব্যাগে রেখে খেলা করছে। খোকন শিশুদের বোঝানোর চেষ্টা করেন ছানাগুলোকে মায়ের কাছে ফিরিয়ে না দিলে মা ও ছানা উভয়েই কষ্ট পাবে। অনেক বোঝানোর পর শিশুরা ছানাদের মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিতে রাজি হয়।

ওই দলে ছিল ছয় শিশু। এসইডব্লিউর সদস্যরা খাইছড়া চা-বাগানের একটি মাঠে শিশুদের সঙ্গে বৈঠক করেন। তাদের বোঝানো হয়, পাখিরা মানুষের বন্ধু। পাখি ফসলের পোকামাকড় খেয়ে মানুষের উপকার করে। পরে শিশুরা বলেছে, তারা আর বাসা থেকে পাখির ছানা আনবে না। পাখিও ধরবে না।

খোকন থৌনাউজম আজ বুধবার প্রথম আলোকে বলেন, ছানাগুলো ঠিক আছে কি না, দেখতে আজ সকালে আবার সেই গাছের কাছে গিয়েছিলেন। সেখানে দেখেন মা পাখি ছানাদের খাবার খাওয়াচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন