default-image

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে ভাগনিজামাইয়ের ছুরিকাঘাতে আহত আফাজ উদ্দিন (৫৮) মারা গেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পূর্বশত্রুতার জের ধরে গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার পাটগ্রাম ইউনিয়নের ধবলসুতী গ্রামে তিনি ছুরিকাহত হন। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিহত আফাজ উদ্দিন পাটগ্রাম পৌরবাজারের শাক বিক্রির ব্যবসা করতেন। থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পূর্বশত্রুতার জের ধরে মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে ধবলসুতী গ্রামে ওয়াজ মাহফিল এলাকায় মামাশ্বশুর আফাজ উদ্দিনের ওপর হামলা চালান উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের উফারমারা গ্রামের বাসিন্দা হবিবর রহমান ওরফে গোদা (৪০)। উপর্যুপরি ধারালো চাকুর আঘাতে আফাজ উদ্দিনকে জখম করে পালিয়ে যান তিনি। পরে স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় আফাজকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সন্ধ্যার দিকে মারা যান আফাজ।

পূর্বশত্রুতার জের ধরে মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে ধবলসুতী গ্রামে ওয়াজ মাহফিল এলাকায় মামাশ্বশুর আফাজ উদ্দিনের ওপর হামলা চালান উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের উফারমারা গ্রামের বাসিন্দা হবিবর রহমান ওরফে গোদা (৪০)।

হামলার পরপর নিহত ব্যক্তির ছোট ভাই রমজান আলী বাদী হয়ে পাটগ্রাম থানায় হবিবর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। পাটগ্রাম থানা-পুলিশ গতকাল বুধবার সকালে অভিযান চালিয়ে হবিবরকে গ্রেপ্তার করে। পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত জানান, গ্রেপ্তার হবিবর রহমানকে লালমনিরহাট আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন