স্ত্রী ও দুই শিশুসন্তানকে নিয়ে বাসে যশোরের কেশবপুর উপজেলায় গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছেন রতন মিয়া (৪০)। তিনি বলেন, ‘ঘাটে যানজট এড়াতে সাহ্‌রির সময় ঢাকার গাবতলী থেকে রওনা দিয়েছি। সকাল সাতটার দিকে পাটুরিয়ার এক কিলোমিটার আগে এসে বাসের লাইনে আটকা পড়ি। দুই ঘণ্টা পরও ফেরিতে ওঠার অপেক্ষায় আছি।’

ব্যক্তিগত গাড়ি ও মাইক্রোবাসেও অনেকে গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছেন। এ কারণে ঘাট এলাকায় এসব যানবাহনেরও চাপ বাড়ছে। আজ সকাল নয়টা পর্যন্ত পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ঘাট এলাকায় শতাধিক ব্যক্তিগত গাড়ি ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় ছিল।

৫ নম্বর ঘাট এলাকায় ইমতিয়াজ আহমেদ নামের এক যাত্রী বলেন, তিনি পরিবার নিয়ে ফরিদপুরে গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছেন। এক ঘণ্টার বেশি সময় ধরে ঘাটে আটকে আছেন, তবু ফেরির টিকিট পাননি।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয়সহ ঘাটসংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রাজধানী ঢাকাসহ আশপাশের এলাকা থেকে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলার মানুষের যাতায়াতের অন্যতম নৌপথ মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ও রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া নৌপথ। মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ও মাদারীপুরের বাংলাবাজার নৌপথে পণ্যবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাস পারাপার বন্ধ থাকায় ওই পথের যানবাহন পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে আসতে শুরু করেছে। এতে ঈদের আগে এই নৌপথে যাত্রীবাহী বাসের চাপ আরও বেড়ে গেছে। বর্তমানে ১৯টি ফেরির মধ্যে ১৮টি ফেরিতে যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসির আরিচা কার্যালয়ের সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মহিউদ্দিন রাসেল প্রথম আলোকে বলেন, আগামী দু-এক দিনের মধ্যে আরও দুটি ফেরি এই নৌপথে যুক্ত হবে। ঈদযাত্রায় এ নৌপথে ২১টি ফেরি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হবে।

যাত্রীদের নিরাপত্তায় বিশেষ ব্যবস্থা

ঈদের আগে পাটুরিয়া ঘাটে ছিনতাইকারী, মলম ও অজ্ঞান পার্টির দৌরাত্ম্য বেড়ে যায়। যাত্রীদের পারাপার নিরাপদ করতে এবং ঘাট এলাকায় যাত্রীদের নিরাপত্তায় বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন।

এ নিয়ে গতকাল সোমবার দুপুরে জেলা পুলিশ প্রশাসন, বিআইডব্লিউটিএ, বিআইডব্লিউটিসি, লঞ্চ কর্তৃপক্ষসহ ঘাটসংশ্লিষ্ট দপ্তরের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা হয়। এতে ঢাকা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (প্রশাসন ও অর্থ) জিহাদুল কবির বলেন, ঈদের আগে ও পরে যাত্রীদের নিরাপত্তায় ঘাট এলাকায় প্রয়োজনীয় পুলিশ, র‍্যাব ও আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। এ ছাড়া জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটও এখানে দায়িত্ব পালন করবেন।

মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান বলেন, ঘাট এলাকায় যাত্রীদের নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরা আনা হবে। ঘাট এলাকায় চাঁদাবাজি বন্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এরপরও কেউ চাঁদাবাজি করলে তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন