পুলিশ ও এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ সকালে এলাকাবাসী বেড়া পৌর এলাকার আলহেরানগর মহল্লার একটি ফসলের খেতে এক তরুণের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পরে পুলিশ নিহত তরুণের পকেটে থাকা মুঠোফোন ও অন্যান্য সূত্র থেকে তাঁর পরিচয় নিশ্চিত হয়। পুলিশের ধারণা, রাতের কোনো এক সময় দুষ্কৃতকারীরা ইমরানকে ওই স্থানে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে ফেলে রেখে যায়।

পুলিশ জানায়, ইমরান ২০১৫ সালের ৪ সেপ্টেম্বর পৌর এলাকার সান্ড্যালপাড়া মহল্লার আরাফাত নামের এক শিশুকে অপহরণ ও হত্যার ঘটনায় কিশোর অপরাধী হিসেবে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। তখন তিনি অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। ওই ঘটনায় প্রায় ছয় বছর যশোর কিশোর সংশোধনাগারে কারাভোগের পর সম্প্রতি মুক্তি পান।

বেড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার প্রথম আলোকে বলেন, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। তাঁরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছেন। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন