বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত ব্যক্তির পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, জাহাঙ্গীর আলম গত শুক্রবার সকালে বাড়ি থেকে বের হন। এর পর থেকে তাঁর আর কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। গতকাল রোববার তাঁর স্ত্রী শাহানারা খাতুন এ বিষয়ে পাবনা সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। এর পর থেকেই পুলিশ তাঁকে খুঁজতে শুরু করে।

পুলিশ ধারণা করছে, এক থেকে দুদিন আগেই তাঁকে হত্যার পর ওই ডোবায় ফেলে রাখা হয়েছিল।

আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাজাপুর এলাকার একটি ডোবায় একটি লাশ ভাসতে থেকে স্থানীয় লোকজন থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। খবর পেয়ে নিহত ব্যক্তির স্বজনেরা এসে লাশটি জাহাঙ্গীর আলমের বলে শনাক্ত করেন।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম ঘটনাটি নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, লাশটি উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তর জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এক থেকে দুদিন আগেই তাঁকে হত্যার পর ওই ডোবায় ফেলে রাখা হয়েছিল। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির পরিবার এখনো কোনো মামলা করেনি। হত্যার কারণ উদ্‌ঘাটনে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন