default-image

পাবনায় প্রথম টিকা নিলেন পাবনা-৫ আসনের সাংসদ গোলাম ফারুক। সাংসদের টিকা নেওয়ার মধ্য দিয়ে আজ রোববার সকালে পাবনা জেলায় সদর হাসপাতাল চত্বরে  টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়।

সকাল ১০টায় উদ্বোধনী পর্ব শেষে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম, জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ, পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান এবং পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. রোস্তম আলী টিকা নেন।

প্রথম টিকা নেওয়ার পর প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে সাংসদ গোলাম ফারুক বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক প্রচেষ্টায় দেশে আজ করোনাভাইরাসের টিকা এসেছে। জেলায় প্রথম সেই টিকা নিতে পেরে আমি গর্বিত। আজ আমার জন্য এক মহাআনন্দের দিন। দিনটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে।’

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম বলেন, ‘আমি ও আমার পরিবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলাম। কষ্টটা অনুভব করেছি। দেশবাসীর সুরক্ষার জন্য প্রধানমন্ত্রী টিকা এনেছেন। তাই দেশবাসীকে উৎসাহিত করতে আমি সপরিবারে টিকা নিতে এসেছি। টিকা নিয়েছি।’ দেশবাসীর প্রতি করোনার টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ভয় নয়, নিজের সুরক্ষার জন্য নিয়ম মেনে টিকা নিন।’

বিজ্ঞাপন
default-image

সরেজমিনে পাবনা সদর হাসপাতাল চত্বরে দেখা গেছে টিকা নিয়ে এক উৎসবের আমেজ। সঙ্গে রয়েছে উৎসাহ। প্রশাসনের কর্মকর্তাদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষ উৎসাহ নিয়ে এসেছেন টিকা প্রসঙ্গে জানতে, বুঝতে। দূর থেকেই অনেকে দেখছেন টিকা প্রদানের কার্যক্রম।

পাবনা জেলা সদর হাসপাতালে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখতে এসেছিলেন জেলা শহরের শালগাড়িয়া মহল্লার বাসিন্দা হাফিজুর রহমান। টিকা নেবেন কি না, তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আজ টিকা দেওয়া হবে না। এত দিন গুজবের কারণে প্রথমে টিকা নিয়ে একটু ভয় ছিল। তবে গুণী-জ্ঞানীরা টিকা নেওয়ার কারণে সে ভয় অনেকটাই কেটে গেল। শিগগিরই পরিবারের সবার টিকার ব্যবস্থা করব।’  

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলার ৯ উপজেলায় ৩৩টি কেন্দ্রে একযোগে এই টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত জেলা টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন ২ হাজার ৫৯৫ জন। উদ্বোধনী দিনের তাঁদের মধ্য থেকে জেলা সদরে ১০০ জন ও উপজেলাগুলোয় মানুষের উপস্থিতির ওপর নির্ভর করে টিকা দেওয়া হবে।

উদ্বোধনী দিনে আনুষ্ঠানিকতার কারণে স্বল্প পরিসরে টিকা দেওয়া হবে। কাল সোমবার থেকে পুরোদমে কর্মসূচি চলবে। যাঁরা নিবন্ধন করবেন, তাঁদেরই টিকা দেওয়া হবে।
আব্দুল মোমেন, সিভিল সার্জন, পাবনা

জেলা সিভিল সার্জন আব্দুল মোমেন প্রথম আলোকে বলেন, উদ্বোধনী দিনে আনুষ্ঠানিকতার কারণে স্বল্প পরিসরে টিকা দেওয়া হবে। কাল সোমবার থেকে পুরোদমে কর্মসূচি চলবে। যাঁরা নিবন্ধন করবেন, তাঁদেরই টিকা দেওয়া হবে। খুদে বার্তার মাধ্যমে নিবন্ধনকারীকে তাঁর টিকা নেওয়ার কেন্দ্র কোথায়, তা জানিয়ে দেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন