default-image

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার টুঙ্গিবাড়িয়া গ্রামে বিষপানে দুই কিশোর–কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে অচেতন অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। স্থানীয় লোকজন ও পুলিশের ধারণা, প্রেমঘটিত কারণে এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।

এই দুই কিশোর–কিশোরী হলো রাজীব প্যাদা (১৭) ও রাবেয়া আক্তার (১৫)। রাজীব টুঙ্গিবাড়িয়া গ্রামের জহির প্যাদার ছেলে এবং রাবেয়া প্রতিবেশী রিপন হাওলাদারের মেয়ে। তারা দুজনই এলাকার বড় বাইশজদিয়া এ হাকিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

বড় বাইশদিয়া এ হাকিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মাহাতাব উদ্দিন বলেন, রাজীব ও রাবেয়া তাঁর বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। কী কারণে এমন ঘটনা ঘটল, বিষয়টি তাঁদের কাছে অজানা।

তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন বলেন, ওই কিশোর ও কিশোরীর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠলে দুই পরিবার বিষয়টি মেনে নেয়নি। এ কারণে দুজন আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সন্ধ্যার পর দুজন রাবেয়ার বাড়ির কাছের নির্জন স্থানে বসে বিষপান করে। পরে তারা দুজনে অচেতন হয়ে পড়ে ছিল। স্থানীয় ব্যক্তিরা অচেতন অবস্থায় দুজনকে পড়ে থাকতে দেখে তাৎক্ষণিক পার্শ্ববর্তী কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের দুজনকে মৃত ঘোষণা করে বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই তারা মারা যায়।

কিশোর–কিশোরীর পরিবারের কেউ এ বিষয়ে কথা বলতে চাননি।

রাঙ্গাবালী থানার ওসি (তদন্ত) মোস্তফা কামাল বলেন, কেন দুজন একসঙ্গে বসে বিষপানে আত্মহত্যা করল, তা এখনো নিশ্চিত হয়নি। তবে প্রেমঘটিত কারণে এমনটা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। বিষয়টির ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, কলাপাড়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে খবর পেয়ে দুজনের লাশ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন