বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ১৫ অক্টোবর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভা থেকে মেরুং ইউপির সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ১০ জনের নাম প্রস্তাব পাঠানো হয়। ২৬ অক্টোবর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড মাহমুদা বেগম লাকিকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেয়। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড সারা দেশে নারীদের জন্য ৩৩ শতাংশ মনোনয়ন সংরক্ষিত রেখেছে। সে হিসাবে খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবান জেলার একমাত্র নারী প্রার্থী হিসেবে তাঁকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

নির্বাচিত হলে আমার মূল লক্ষ্য হবে নারী অধিকার নিশ্চিত করা। বাল্যবিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করা। ইউনিয়নের পিছিয়ে পড়া ও পশ্চাৎপদ জনগোষ্ঠীর আর্থসামাজিক উন্নয়ন, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগসহ মানুষের মৌলিক অধিকার বাস্তবায়নে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে কাজ কাজ করব।
মাহমুদা বেগম লাকি

মাহমুদা বেগম লাকি প্রথম আলোকে বলেন, ‘কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে। আমি ২০০৩ সাল থেকে উপজেলা ছাত্রলীগের ছাত্রীবিষয়ক সম্পাদক ছিলাম। ২০১৪ সাল থেকে আজ পর্যন্ত উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছি। মেরুং ইউনিয়নের দলের সব নেতা-কর্মী, জনগণ আমাকে সমর্থন দিয়েছেন এবং সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমার পক্ষে কাজ করছেন। নির্বাচিত হলে আমার মূল লক্ষ্য হবে নারী অধিকার নিশ্চিত করা। বাল্যবিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করা। ইউনিয়নের পিছিয়ে পড়া ও পশ্চাৎপদ জনগোষ্ঠীর আর্থসামাজিক উন্নয়ন, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগসহ মানুষের মৌলিক অধিকার বাস্তবায়নে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে কাজ কাজ করব।’

মেরুং ইউপি নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা মাঈন উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, ‘বৃহৎ এ ইউপির ৯টি ওয়ার্ডে ১৫টি ভোটকেন্দ্রে ৭১টি বুথ রয়েছে। এ ইউনিয়নে পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ৮০৫ ও নারী ভোটার ১৪ হাজার ১৮৪ জন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ কাশেম বলেন, মেরুং ইউনিয়নের দলের সব নেতা-কর্মী, জনগণ নৌকা প্রতীকের বিজয়ের জন্য মাহমুদা বেগম লাকির পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন