default-image

জমি চষার কাজ শেষে ট্রাক্টর নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন চালক বিশু মিয়া (৩০)। সড়কে মোড় ঘোরানোর সময় পেছন দিক থেকে দ্রুতগামী একটি পিকআপ এসে ট্রাক্টরটিকে ধাক্কা মেরে দ্রুত চলে যায়। ওই ধাক্কায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চালক বিশু মিয়া ট্রাক্টরসহ ব্রহ্মপুত্র নদে পড়ে যান। পরে তাঁকে মৃত অবস্থায় পানির নিচ থেকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরি দল।

আজ সোমবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে ময়মনসিংহের নান্দাইল-ত্রিশাল সড়কের নান্দাইল উপজেলার চরশ্রীরামপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিহত বিশু মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার মালাই গ্রামের মো. জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে। তিনি আট মাস আগে নান্দাইল উপজেলার চরলক্ষ্মীদিয়া গ্রামের আয়ুব আলীর মেয়ে ফাহিমা খাতুনকে (২৫) বিয়ে করেন। ফাহিমা বর্তমানে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

পিকআপের ধাক্কায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চালক বিশু মিয়া ট্রাক্টরসহ ব্রহ্মপুত্র নদে পড়ে যান। পরে তাঁকে মৃত অবস্থায় পানির নিচ থেকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরি দল।

নান্দাইল মডেল থানা-পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। রাত সাড়ে আটটার দিকে সেখানে দেখা যায়, থানা ভবনে প্রবেশপথে বসে বিলাপ করছিলেন ফাহিমা। তিনি বলেন, ‘সকালে সুস্থ মানুষটা (বিশু মিয়া) বাড়ি থেকে বের হয়ে গেলেন। এখন তিনি লাশ হয়ে ফিরলেন। আমার কী হবে? আমার আগত সন্তান কাকে বাবা বলে ডাকবে?’ এসব বলে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন। স্বজনেরা তাঁকে সান্ত্বনা দিচ্ছিলেন। ফাহিমার ভাই হাবিবুর রহমান বলেন, তাঁর দুলাভাই বোরো মৌসুমে জমি চাষ করার জন্য নবীনগর থেকে ট্রাক্টর নিয়ে নান্দাইলে এসেছিলেন।

নান্দাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আকন্দ বলেন, আগামীকাল মঙ্গলবার ময়নাতদন্ত করার জন্য লাশ কিশোরগঞ্জের ২৫০ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। পাশাপাশি আইনি প্রক্রিয়া গ্রহণ করা হবে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন