default-image

পিরোজপুর সদর উপজেলার উত্তর রানীপুর গ্রামের আরিফ শেখ (৩০) তাঁর বসতবাড়ির পাশে ঢ্যাঁড়স ও পুঁইশাকের চাষ করেছেন। সবজি চাষের আড়ালে তিনি খেতে গাঁজার চাষও করেন। রোববার দুপুরে জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) একটি দল অভিযান চালিয়ে আরিফ শেখের খেত থেকে ১৪৭টি গাঁজার গাছ জব্দ করেন। এ সময় ১০০ গ্রাম গাঁজাসহ আরিফ শেখকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আরিফ শেখ সদর উপজেলার শারিকতলা ডুমরিতলা ইউনিয়নের উত্তর রানীপুর গ্রামের জলিল শেখের ছেলে। তিনি একজন মাদক ব্যবসায়ী।

ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রোববার দুপুরে আরিফ শেখ তাঁর বাড়ির পাশে সবজিখেতে গাঁজার চাষ করেছেন, এমন সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি পুলিশের একটি দল উপজেলার উত্তর রানীপুর গ্রামে অভিযান চালায়। এ সময় আরিফ শেখ তাঁর খেতে পরিচর্যার কাজ করছিলেন। পুলিশ আরিফ শেখকে আটক করে তাঁর সঙ্গে থাকা ১০০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করেন। এরপর আরিফ শেখের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী তাঁর সবজির বাগান থেকে ১৪৭টি গাঁজার গাছ জব্দ করে ডিবি পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

পিরোজপুর ডিবি পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) দোলোয়ার হোসেন বলেন, গাঁজা চাষের গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী আরিফ শেখকে ১০০ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করা হয়। এ সময় অরিফ শেখকে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তিনি গাঁজা চাষের কথা স্বীকার করলে তাঁর সবজিখেত থেকে ১৪৭টি গাঁজাগাছ জব্দ করা হয়। আরিফ শেখের বিরুদ্ধে গাঁজা ব্যবসা ও গাঁজাগাছ চাষের অপরাধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হবে।

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নূরুল ইসলাম গতকাল বিকেল সাড়ে পাঁচটায় বলেন, এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

এর আগে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি নাজিরপুর উপজেলার খেঁজুরতলা গ্রামের বাবুল খানের ঘেরের জমি থেকে ১৪টি গাঁজার গাছ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ১২ মার্চ নাজিরপুরের সামন্তগাতী গ্রামের কৃষক সমীর গাইনের (৪৮) বসতবাড়ির পাশে খেত থেকে ২৭টি গাঁজার গাছ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় সমীরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন