বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার সকালে জসিম উদ্দিন স্থানীয় সন্ধ্যা নদীর তীরে জাহাজ তৈরির ডকইয়ার্ডে রংমিস্ত্রির কাজ করছিলেন। এ সময় তাঁর ব্যবহৃত হাতুড়ির কাঠের হাতলের একাংশ ভেঙে লোহার মধ্যে থেকে যায়। তিনি লোহার হাতুড়ি আগুনে পুড়িয়ে ভেঙে যাওয়া কাঠের অংশটি বের করার চেষ্টা করছিলেন। আগুনের তীব্রতা বাড়াতে সেখানে দাহ্য পদার্থ দেন। এতে আগুন আরও দাউ দাউ করে জ্বলে জসিমের পরনের লুঙ্গিতে লাগে। এতে তাঁর দুই পা ঝলসে যায়। স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

জসিম উদ্দিনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্বরূপকাঠি পৌরসভার সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর নার্গিস আক্তার।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন