default-image

পিরোজপুর পৌরসভার নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী শেখ শহীদুল্লাহ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এস এম সাইদুল ইসলামের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র যাচাই–বাছাই চলাকালে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পিরোজপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা খান আবি শাহানুর খান এই দুই মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেন।

ফলে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী হাবিবুর রহমান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হতে চলছেন। এর আগে হাবিবুর রহমান ২০১০ ও ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত পৌরসভার নির্বাচনেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, মেয়র পদে ১৩ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। গত রোববার আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র হাবিবুর রহমান, বিএনপির মেয়র প্রার্থী শেখ শহীদুল্লাহ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম সাইদুল ইসলাম মনোনয়নপত্র জমা দেন। আজ মনোনয়নপত্র যাচাই–বাছাই চলাকালে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পিরোজপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা খান আবি শাহানুর খান বিএনপির প্রার্থী শেখ শহীদুল্লাহ ও স্বতন্ত্র এস এম সাইদুল রহমানের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন।

এর ফলে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী হাবিবুর রহমান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হতে চলছেন। এর আগে হাবিবুর রহমান ২০১০ ও ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত পৌরসভার নির্বাচনেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন।
বিজ্ঞাপন

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পিরোজপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা খান আবি শাহানুর খান বলেন, হলফনামায় তথ্য গোপন করায় শেখ শহীদুল্লাহর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। আর স্বতন্ত্র প্রার্থী এস এম সাইদুল রহমানের সমর্থনকারী ভোটারের স্বাক্ষর যুক্তকরণে গরমিল থাকায় তাঁর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

মনোনয়নপত্র বাতিলের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির মেয়র প্রার্থী শেখ শহীদুল্লাহ বলেন, তিনি আপিলের বিষয়টি ভেবে দেখছেন।

দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত পিরোজপুর পৌরসভার নির্বাচন ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৯ ডিসেম্বর। পিরোজপুর পৌরসভার ভোটারসংখ্যা ৪৫ হাজার ১৮৫। প্রথমবারের মতো ইভিএম পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ২৬টি কেন্দ্রে ১২৯টি বুথ থাকবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন