বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ল্যাব–সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা আরও জানান, মেশিনটি অকেজো হওয়ার পর সংশ্লিষ্ট সবাইকে বিষয়টি অবহিত করলেও গত ১৩ দিনেও এটি চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।

আরটি–পিসিআর ল্যাবের প্রধান ও বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এ কে এম আকবর কবীর আজ মঙ্গলবার সকালে প্রথম আলোকে বলেন, ‘পিসিআর মেশিনটি বিকল হওয়ার পর তাৎক্ষণিক আমি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ওভারসিস মার্কেটিং কোম্পানিকে বিষয়টি জানাই। মেশিনটির ওয়ারেন্টির সময় এক বছর পার হওয়ায় সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান সাড়া দেয়নি। পরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরসহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করি। গতকাল সোমবার আমাদের জানানো হয়েছে, আজ এ নিয়ে অধিদপ্তরে জরুরি একটি সভা করে বরিশালেরটিসহ আরও কয়েকটি মেশিন অকেজো অবস্থায় আছে, সেগুলো মেরামতের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এখন আমরা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনার অপেক্ষায় আছি।’

হাসপাতাল সূত্র জানায়, গত বছরের ৮ এপ্রিল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে বিভাগের প্রথম প্রতিদিন ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষায় সক্ষম আরটি–পিসিআর ল্যাবটি চালু হয়। এরপর ভোলায় একই সক্ষমতার আরও একটি ল্যাব স্থাপন করা হয়। তবে ভোলা জেলাটি বিচ্ছিন্ন হওয়ায় সেই ল্যাবে ওই জেলার নমুনাই পরীক্ষা হতো। এরপর গত আগস্টে করোনার সংক্রমণ চূড়ায় উঠলে ভোলা বাদে বিভাগের বাকি জেলা থেকে প্রতিদিন ৬০০ থেকে ৭০০ নমুনা সংগ্রহ হওয়ায় এই ল্যাবে নমুনার জট দেখা দেয়। এ কারণে ওই সময়ে বাকি নমুনা ঢাকায় পাঠানো হতো। এতে নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পেতে ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের। এই ভোগান্তি লাঘবে গত আগস্টে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন আরও একটি পিসিআর মেশিন সরবরাহ করা হয় এই ল্যাবে। ওই মেশিন চালু হলে দৈনিক গড়ে ৬০০ নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হতো। কিন্তু পাওয়ার সাপ্লাইসহ আনুষঙ্গিক কিছু যন্ত্রপাতির সরবরাহ না করায় সেটি আর আর চালু করা যায়নি।

জানতে চাইলে বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) শ্যামল কৃষ্ণ মণ্ডল বলেন, পিসিআর ল্যাবে ত্রুটির বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে চিঠি দেওয়া হয়েছে এবং ফোনেও যোগাযোগ করা হচ্ছে। তবে বর্তমানে প্রাপ্ত করোনার নমুনা ভোলার ল্যাবে পাঠিয়ে প্রতিবেদন দেওয়া হচ্ছে। এতে কোনো ধরনের জটিলতা হচ্ছে না। দৈনিক সরবরাহকৃত প্রায় ১০০ নমুনা ভোলার ল্যাবে পাঠানো হচ্ছে।

শ্যামল কৃষ্ণ মণ্ডল আরও বলেন, ‘স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন মিয়া ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সোমবার তিন দিনের সরকারি সফরে বরিশাল এসেছেন। তাঁরা বিষয়টি অবগত এবং সচিব মহোদয় সেন্ট্রাল মেডিকেল স্টোরস ডিপোকে (সিএমএসডি) আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর ল্যাবের মেশিনটি সচল করার নির্দেশ দিয়েছেন। আশা করি, এটা শিগগিরই সচল হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন