বাংলাদেশ ছাড়াও দক্ষিণ এশিয়ার ভারত, নেপাল ও পাকিস্তানে ধুম কচ্ছপ দেখা যায়। বাংলাদেশের বন্য প্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল-১ অনুযায়ী, এটা সংরক্ষিত প্রজাতির কচ্ছপ।

পুকুরের মালিক হানিফ ফকির কচ্ছপটি বিক্রির চেষ্টা করছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বন বিভাগের বন্য প্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ খুলনা কার্যালয়ের পরিদর্শক রাজু আহম্মেদের নেতৃত্বে তাঁর কাছ থেকে কচ্ছপটি উদ্ধার করে নিজেদের হেফাজতে নেওয়া হয়।

হানিফ ফকির প্রথম আলোকে বলেন, জাল দিয়ে পুকুর থেকে মাছ ধরার সময় কচ্ছপটি পেয়ে তিনি নিজের কাছে রেখেছিলেন। পরে বন বিভাগ ও পুলিশ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি প্রাণীটি নিয়ে থানায় যান। সেখানে বন বিভাগের লোকদের কাছে কচ্ছপটি হস্তান্তর করেন।

পরিদর্শক রাজু আহম্মেদ বলেন, এ প্রজাতির কচ্ছপ ধরা, মারা বা বেচাকেনা করা সম্পূর্ণ আইনবিরোধী। পুকুরে একটি কচ্ছপ পাওয়া গেছে—এমন খবর পেয়ে তাঁরা প্রাণীটি উদ্ধার করে খুলনার বন্য প্রাণী পুনর্বাসন কেন্দ্রে নিয়ে যাচ্ছেন। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী, এটি উপযুক্ত প্রাকৃতিক পরিবেশে অবমুক্ত করা হবে বলে তিনি জানান।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন