default-image

পুলিশ দিয়ে পিটিয়ে নৌকায় ভোট নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার কথা অস্বীকার করলেন কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শাহ আলম। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় উখিয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এ কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম বলেন, গত বৃহস্পতিবার ফেসবুকে যে ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে, তা তাঁর বিভিন্ন বক্তব্যকে কেটেকুটে সংযোজন, বিয়োজন করে বিকৃতভাবে প্রকাশ করেছে তাঁর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ। তারপরও দলীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মনোবল চাঙা করতে দেওয়া বক্তব্যে শব্দচয়নে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ভুলত্রুটি হয়ে থাকলে, তিনি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ করছেন।

সংবাদ সম্মেলন ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম আরও বলেন,‘আমি নৌকা প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিনিধি এবং বড় ভাই সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সহায়তায় এলাকার প্রচুর উন্নয়ন করেছি। এসব দেখে প্রতিপক্ষ অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমার বক্তব্যকে বিকৃত করে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার করে প্রশাসনকে প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড় করানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে।’ তিনি সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলমের ছোট ভাই।

১৬ মার্চ রাতে হলদিয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের হাতিরঘোনা এলাকায় নির্বাচনের একটি প্রস্তুতি সভায় শাহ আলম পুলিশ দিয়ে পিটিয়ে নৌকায় ভোট নেওয়ার ঘোষণা দেন। বৃহস্পতিবার থেকে তাঁর এই বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। ১ মিনিট ৪৪ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে শাহ আলম সরকার ও পুলিশের কথা এবং নিজের ও তাঁর ভাইয়ের ক্ষমতা সম্পর্কে বলেন।

এ নিয়ে ১৯ মার্চ প্রথম আলোর চতুর্থ পৃষ্ঠায় ‘পুলিশ দিয়ে পিটিয়ে নৌকায় ভোট নেওয়ার ঘোষণা’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না হলেও শাহ আলম আগাম মাঠে নেমেছেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন