বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উপজেলা মহিলাবিষয়ক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জন্মসনদ অনুযায়ী কিশোরীর বয়স ১৪ বছর। দিনমজুর এক তরুণের (২৩) সঙ্গে ওই কিশোরীর বিয়ের আয়োজন চলছিল। খবর পেয়ে গতকাল রাত ১০টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৌসুমী খানম গাংনী থানার কয়েকজন পুলিশ সদস্য নিয়ে ওই বাড়িতে যান। তখন বরযাত্রীরা খাওয়াদাওয়া করছিলেন। পুলিশ দেখে খাবার ফেলে তাঁরা দৌড়ে পালিয়ে যান। তবে বর-কনেসহ উভয় পক্ষের কয়েকজন অভিভাবক পালাতে পারেননি।

এ বিষয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ইউএনও মৌসুমী খানম বলেন, সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে ওই কিশোরীর বিয়ে বন্ধ করা সম্ভব হয়েছে। বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কোথাও বিয়ে দেবেন না বলে মৌখিকভাবে তার অভিভাবকেরা অঙ্গীকার করেছেন। উপজেলা প্রশাসন সব সময় বাল্যবিবাহ বন্ধে তৎপর।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন