গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন সুজন মিয়া, মঞ্জু মিয়া, নাজিম উদ্দিন, তোফাজ্জল ও আনারুল। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শাহারুল সরকারের সঙ্গে জমিসংক্রান্ত বিষয় নিয়ে প্রতিবেশী সালাম মিয়া ও মজিদ খাঁর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে দুই পক্ষই আদালতে একাধিক মামলা করেছেন। এর মধ্যে গত মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে দুই পক্ষের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডার একপর্যায়ে মারামারি ঘটনা ঘটে। এতে শাহারুলসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১২ জন আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে পূর্বধলা ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন।

এর মধ্যে শাহারুলের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সন্ধ্যায় তাঁর মৃত্যু হয়।

পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ শিবিরুল ইসলাম বলেন, শাহারুলের মৃত্যুর পর গতকাল রাতেই তাঁর বোন ১০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেছেন। এ মামলায় গ্রেপ্তার পাঁচজনকে আজ দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন