default-image

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় পেট্রলের আগুনে দগ্ধ ইয়াছমিন আকতার নামের সেই নারীকে ঢাকায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়া হচ্ছে। আজ শনিবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে নিয়ে ঢাকায় রওনা হয়েছে পরিবার।

আজ সন্ধ্যায় ইয়াছমিন আকতারের বাবা হারুনুর রশিদ মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ‘মেয়ের অবস্থা ভালো নয়। ঢাকায় নিয়ে যাচ্ছি। এখন ফেনী পার হচ্ছি। চিকিৎসকেরা বলেছেন, তাঁর শরীরের ৪০ শতাংশ পুড়ে গেছে।’

পরিবারের অভিযোগ, গতকাল শুক্রবার ভোররাতে উপজেলার কোদালা ইউনিয়নের গোয়ালপুরা গ্রামের সন্দ্বীপ পাড়ায় স্ত্রী ইয়াছমিন আকতারের (৩০) গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন স্বামী সলিমুল্লাহ রাফেল।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের চিকিৎসক এ খালেদ গতকাল রাতে প্রথম আলোকে জানিয়েছিলেন, রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁর শরীরের ৪০ শতাংশ পুড়ে গেছে।

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (রাঙ্গুনিয়া সার্কেল) আনোয়ার হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ওই নারীর বাবা হারুনুর রশিদ গতকাল বিকেলে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে জামাতা সলিমুল্লাহ রাফেলের বিরুদ্ধে রাঙ্গুনিয়া থানায় মামলা করেছেন। আগামীকাল রোববার আদালতে আসামির রিমান্ড শুনানি হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0