default-image

পেট্রল কম দেওয়ার প্রতিবাদ করায় এক পরিবহনশ্রমিককে একটি ফিলিং স্টেশনের মালিক ও তাঁর কর্মচারীরা মারপিট করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ বুধবার সকালে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার ধানাইদহ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এর প্রতিবাদে পরিবহনশ্রমিকেরা আজ বিকেলে নাটোর-পাবনা মহাসড়ক অবরোধ করেন। পরে প্রশাসনের বিচারের আশ্বাসে আধঘণ্টা পর অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।

বড়াইগ্রাম শ্রমিক ইউনিয়নের দাবি, সকাল আটটার দিকে উপজেলার গড়মাটি এলাকার বালু ব্যবসায়ী ও পরিবহনশ্রমিক আলতাফ হোসেন ধানাইদহের কাজল-স্বর্ণা ফিলিং স্টেশন থেকে মোটরসাইকেলের জন্য পেট্রল কেনেন। সেখানে মাপে কম দেওয়া হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ তোলেন। তাঁর এই অভিযোগ শুনে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ফিলিং স্টেশনের মালিক কাজল হোসেন লোকজন নিয়ে আলতাফকে বেধড়ক মারধর করেন। এ সময় তাঁর পকেট থেকে ১ লাখ ৫২ হাজার টাকা নগদ ও মুঠোফোন ছিনিয়ে নেওয়া হয়। তাঁর মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়েছে।

পরে বনপাড়া হাইওয়ে থানা-পুলিশের উপস্থিতিতে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নিলুফার ইয়াসমিন ডালু পেট্রল মেপে ১৭ লিটারের স্থলে ১১ লিটার পান। এই ঘটনা জানার পর শ্রমিকেরা প্রতিবাদ জানিয়ে ফিলিং স্টেশনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে সড়ক অবরোধ করেন। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে। শেষে ইউএনও জাহাঙ্গীর আলম ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলে শ্রমিকেরা অবরোধ তুলে নেন।

বিজ্ঞাপন

শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্বাস আলী প্রামাণিক বলেন, ‘কাল বৃহস্পতিবারের মধ্যে প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে এ ব্যাপারে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে বড়াইগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, কাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় এ বিষয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন