পরিবেশমন্ত্রী শাহাব উদ্দিন বলেন, ‘একসময় দেশ গরিব ছিল, ভিক্ষুকের দেশ ছিল। অনেকে ঠাট্টা-মশকরা করত। এখন আর সেই দিন নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। আমরা এখন ৪ কোটি ৫০ লাখ টন খাদ্য উৎপাদন করছি।’

অতীতে ভর্তুকি মূল্যে দেওয়া কৃষি যন্ত্রগুলো সঠিকভাবে কাজে লাগানো হচ্ছে কি না, এসব যন্ত্র কেউ বিক্রি করে দিয়েছেন কি না, তা খোঁজ নিয়ে দেখতে প্রশাসন ও কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেন মন্ত্রী। কেউ যন্ত্রের সঠিক ব্যবহার না করলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতেও বলেন তিনি।

আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জুড়ী উপজেলা পরিষদের সভা কক্ষে অনুষ্ঠান শুরু হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোনিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান রঞ্জিতা শর্মা, ভাইস চেয়ারম্যান রিংকু রঞ্জন দাস, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুহাম্মদ জসিম উদ্দিন ও উপকারভোগী কৃষক মনিরুল ইসলাম। এদিকে বড়লেখার ইউএনও খন্দকার মুদাচ্ছির বিন আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দেবল সরকার, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আবদুল লতিফ প্রমুখ।

কৃষি বিভাগ জানায়, ২০২১-২২ অর্থবছরের খরিফ-১ মৌসুমে উফশী আউশ প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় জুড়ী ও বড়লেখা উপজেলায় ৩ হাজার ৬০০ জন ক্ষুদ্র এবং প্রান্তিক কৃষককে বিনা মূল্যে বীজ ও রাসায়নিক সার বিতরণ করা হয়েছে। এ ছাড়া জুড়ীতে দুটি কম্বাইন হারভেস্টার ও দুটি পাওয়ার প্রেশার এবং বড়লেখায় পাঁচটি কম্বাইন হারভেস্টার, দুটি রিপার ও দুটি পাওয়ার প্রেশার যন্ত্র বিতরণ করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন