বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

লালটু সরদার অভিযোগ করেন, ‘আমরা এখানে বাড়ি করার পর বিনা বাধায় ৩২ বছর রাস্তা ব্যবহার করেছি। গ্রামের আসলাম শেখ, লাড্ডু শেখ ও হাসান শেখ স্থানীয় আধিপত্য বিস্তার ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে আমাদের চলাচলের রাস্তা ইটের প্রাচীর দিয়ে বন্ধ করে দিয়েছেন। আমরা এখন বাড়ি থেকে বের হতে পারছি না।’

ফুলজান বেগম (৭৫) নামের এক বৃদ্ধ বলেন, সাত দিন ধরে তাঁরা বাড়ি থেকে বের হতে পারেন না। তাঁর নাতি অন্তঃসত্ত্বা। যেকোনো সময় তাঁকে চিকিৎসকের কাছে নেওয়া লাগতে পারে। বিষয়টি নিয়ে তাঁরা দুশ্চিন্তায় আছেন।

এ বিষয়ে আসলাম শেখের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। পরে লাড্ডু শেখ মুঠোফোনে বলেন, ‘৩২ বছর তাঁদের চলাফেরায় বাধা দিইনি। এক সপ্তাহ আগে আমাদের সঙ্গে লালটু সরদারদের ঝগড়া-বিবাদ হয়। তাই আমরা পথ বন্ধ করে দিয়েছি।’

নিজামকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জুয়েল খান বলেন, পাঁচটি পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখা অমানবিক ব্যাপার। বিষয়টি সমাধানের জন্য এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা একসঙ্গে বসেছিলেন। কিন্তু সমাধান হয়নি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বিষয়টি জানিয়েছেন।

ইউএনও রথীন্দ্র নাথ রায় বলেন, ‘বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যানকে মীমাংসা করার জন্য বলেছি। তিনি ব্যর্থ হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন