বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সুমতি রানী বলেন, ‘অনেক মানুষ আসতেছে। সাহস দিতেছে। আগোত ভয় থাকলেও এখন আর ভয় করছি না। নতুন ঘর হইল। ছেলে দুইটা নতুন করি রিকশাভ্যানও পাইছে। ভগবান সবার মঙ্গল করুক।’

সুমতির ছেলে প্রদীপ চন্দ্র দাসকে দেখা গেল নতুন ঘরের সামনে নতুন ভ্যানটি মোছামুছির কাজ করছেন। সরকারি–বেসরকারি পর্যায়ে যাঁরা সাহায্য-সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন, তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘নতুন ভ্যান চালিয়ে আগের মতোই আয়রোজগার শুরু করেছি। আমাদের কষ্টের মধ্যে যাঁরা এসেছেন, তাঁদের মঙ্গল কামনা করি। ভগবান তাঁদের মঙ্গল করুক।’

প্রদীপের ছোট ভাই স্বপন চন্দ্র দাসও একটি নতুন রিকশাভ্যান পেয়েছেন বলে জানালেন। তিনি বলেন, ‘এখানে যাদের বাড়িঘর পুড়ে যায়, তাদের সবার বাড়ি নতুন করে নির্মাণ হয়েছে। মাথা গোঁজার ঠাঁই পাইছি আমরা। আমাদের পাশে এসে সাহস দিয়েছেন কত মানুষ। এখনো আসছেন। শীতের কাপড় দিছে। চাল-ডাল ও শুকনা খাবার দিছে।’

এদিকে দেবেন্দ্র চন্দ্রের পরিবারসহ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো ইতিমধ্যে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন। তাঁরা তাঁদের নিজ নিজ কাজকর্ম শুরু করলেও ওই দিনের রোমহর্ষক ঘটনা এখনো তাঁরা ভুলতে পারছেন না। বিধ্বস্ত ঘরবাড়ির ক্ষতচিহ্নগুলো সরিয়ে ফেলা হলেও পোড়া মাটির গন্ধ এখনো যেন শরীরে লেপটে আছে, জানালেন ভুক্তভোগীরা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে গত ১৭ অক্টোবর রাতে এই হিন্দুপাড়ায় দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে। ওই ঘটনায় পীরগঞ্জ থানায় তিনটি মামলা করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে রংপুর সরকারি কলেজের দর্শন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী ও কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সহসভাপতি সৈকত মণ্ডল ও মাঝিপাড়া এলাকার বটেরহাট জামে মসজিদের ইমাম রবিউল ইসলাম আছেন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন