বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় শেখঘাট এলাকার ব্যবসায়ী আবু তাহের বলেন, সেতুর এক পাশ দখল করে স্ট্যান্ড করায় যানজট লেগেই রয়েছে। এতে ব্যবসার জন্য মালামাল নিয়ে আসা বিভিন্ন পণ্যবাহী যনাবাহনও আটকা পড়ছে। এ ছাড়া কাজীরবাজারের মাছবাহী ও চালবাহী যানবাহনও যানজটে আটকা পড়ছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সকাল থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে সেতুতে যানবাহনের চাপ বেশি থাকে। এ সময় সেতুর প্রবেশমুখে সিএনজিচালিত অটোরিকশার স্ট্যান্ডের কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়। আবার বেলা তিনটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত যানবাহনের চাপ বেড়ে যায়। এতে ওই সময়ও যানজট দেখা দেয়। সেতুর মুখে যানজট থাকায় নগরের লামাবাজার, তালতলা, শেখঘাট, বন্দরবাজার এলাকায়ও এর প্রভাব পড়ে।

সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক আলী হোসেন সেতুর মুখে স্ট্যান্ড বসানোর কারণে যানজট সৃষ্টির বিষয়টির কথা স্বীকার করলেও এতে ভোগান্তি হওয়ার কথা মানতে নারাজ। তিনি বলেন, জনভোগান্তি কমানোর জন্যই স্ট্যান্ড বসানো হয়েছে। এতে উল্টো পথচারীরা উপকৃত হচ্ছেন।

গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে লামাবাজার থেকে দক্ষিণ সুরমার দিকে যাত্রী নিয়ে যাচ্ছিলেন মাইক্রোবাসচালক আমিন মিয়া। কাজীরবাজার সেতুর উত্তর পাশে পড়েন যানজটে। এ সময় তিনি বলেন, প্রায় প্রতিদিন সেতুর উত্তর পাশ থেকে দক্ষিণ পাশে যাওয়ার পথে যানজটে পড়তে হয়। এর মূল কারণ সেতুর এক পাশ দখল করে গড়ে ওঠা সিএনজিচালিত অটোরিকশার স্ট্যান্ড।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান বলেন, সেতুর প্রবেশমুখে সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালকেরা অবৈধভাবে স্ট্যান্ড গড়ে তুলেছেন। সিলেট মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সহায়তা নিয়ে স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন