পুলিশ সুপার বলেন, সকালে পরীক্ষা শুরুর আগে ওই ভবন থেকে মাহমুদুল হোসাইন, শারমীন আক্তার, সুমি আক্তার, মোরশেদা জান্নাত, সুরাইয়া আক্তার, তানিয়া বাসার, তাসনিম আক্তার ও সারমিন আক্তারকে আটক করে পুলিশ। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে সাত সেট ভুয়া প্রশ্নপত্রের প্রিন্ট কপি, ১২ পরীক্ষার্থীর প্রবেশপত্র, বিভিন্ন ব্যাংকের পাঁচটি সাদা চেকের পাতা, ছয় সেট শিক্ষাসনদের মূল কপি এবং আটটি মুঠোফোন উদ্ধার করা হয়েছে। পরে তাঁদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মঞ্জুর হোসেন, রহমত উল্লাহ, পারভেজ হোসেন, জহিরুল ইসলাম ও জামাল উদ্দিনকে আটক করা হয়েছে। এঁদের মধ্যে তিনজন প্রতারক চক্রের সদস্য। প্রতারক চক্রের অন্য সদস্যদের খুঁজছে পুলিশ। আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলেনে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পলাশ কান্তি নাথ, সহকারী পুলিশ সুপার মিমতানুর রহমান, পুলিশ কর্মকর্তা আজিজুর রহমান মিয়া প্রমুখ।

আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলে জানান ডিবির ওসি শাহাদাত হোসেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন