প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ঢাকায় নেওয়ার দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকায় নেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরিপ্রত্যাশীরা। আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে
ছবি: প্রথম আলো

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকায় নেওয়ার দাবি জানিয়ে মানবন্ধন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরিপ্রত্যাশী প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী খায়রুল ইসলাম বলেন, ‘দেশব্যাপী যে নিয়োগ পরীক্ষাগুলো হচ্ছে, সেগুলোর দিকে লক্ষ করলে আমরা দুর্নীতি আর স্বজনপ্রীতির ছাপ দেখতে পাই। সামনে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে কিছু কুচক্রী মহল দুর্নীতির পাঁয়তারা করছে। এ জন্য তারা জেলা পর্যায়ে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য নানা পরিকল্পনা করছে। তবে আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানাই, তিনি যেন মেধার মূল্যায়ন করে ঢাকায় পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করেন।’

আরও পড়ুন

ফলিত গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী শিবলী নোমান বলেন, ‘নিয়োগ পরীক্ষায় দুর্নীতির কারণে প্রতিনিয়ত মেধাবীরা অবহেলিত হচ্ছেন। প্রশ্নপত্র ফাঁস আর দুর্নীতির কারণে পুরো সমাজব্যবস্থা ধ্বংসের দিকে চলে যাচ্ছে। বিগত চাকরির পরীক্ষাগুলো জেলা পর্যায়ে হওয়ায় অনেক অনিয়ম আর প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা পত্রিকাগুলোতে দেখেছি। যদি চাকরির পরীক্ষা ঢাকায় হয়, তাহলে হয়তো ১০ শতাংশ দুর্নীতি হবে কিন্তু জেলা পর্যায়ে হলে ৯০ শতাংশ হবে। তাই আমরা চাই, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ঢাকায় নেওয়া হোক।’

মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী আবদুল হাকিমের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। এ সময় ‘হলে পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস, জাতি কাঁদবে বারো মাস’, ‘মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ চাই, বেকারদের দাবি মেনে নিন’, ‘নিয়োগ পরীক্ষা দুর্নীতিমুক্ত চাই’ ইত্যাদি স্লোগানসংবলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন।