default-image

বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলায় যমুনা নদীর চর থেকে অপহৃত এক স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার ভোররাত সাড়ে চারটার দিকে তাকে যমুনার ঘেটুয়ার চরের একটি বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। ছাত্রীর স্বজনদের অভিযোগ, প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গত বুধবার তাকে অপহরণ করেন এক তরুণ।

বিজ্ঞাপন
উদ্ধার হওয়া স্কুলছাত্রীর বাড়ি শেরপুরের শাহ বন্দেগি ইউনিয়নের একটি গ্রামে। সে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী।

ছাত্রীকে উদ্ধারের সময় হাবিবুর রহমান (১৯) নামের এক তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এর আগে হাবিবুরকে আসামি করে গত বৃহস্পতিবার রাতে ছাত্রীর মা বগুড়ার শেরপুর থানায় মামলা করেন। হাবিবুরের বাড়ি শেরপুরের গাড়িদহ ইউনিয়নের হাপুনিয়া গ্রামে।

এজাহারে ছাত্রীর স্বজনদের করা অভিযোগের বরাত দিয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও শেরপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, উদ্ধার হওয়া স্কুলছাত্রীর বাড়ি শেরপুরের শাহ বন্দেগি ইউনিয়নের একটি গ্রামে। সে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। গত বুধবার বিকেলে বাড়ির সামনে ঘোরাফেরা করার সময় হাবিবুর রহমান একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় জোরপূর্বক ওই ছাত্রীকে তুলে নিয়ে যান। মেয়েকে খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে তার মা বৃহস্পতিবার রাতে হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে থানায় অপহরণ মামলা করেন।

বিজ্ঞাপন

ওই ছাত্রীর মা অভিযোগ করেন, হাবিবুর রহমান তাঁর মেয়েকে স্কুলে আসা–যাওয়ার পথে উত্ত্যক্ত করতেন। বিভিন্ন সময়ে প্রেমের প্রস্তাব দেন। এতে তাঁর মেয়ে রাজি না হওয়াতেই হাবিবুর তাঁর মেয়েকে অপহরণ করেন। শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, গ্রেপ্তারের পর পুলিশের কাছে হাবিবুর অপহরণ করার কথা স্বীকার করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন