বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফতুল্লা ফায়ার সার্ভিসের জ্যেষ্ঠ স্টেশন কর্মকর্তা মো. আলম হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ভোরে ফতুল্লা পাইলট স্কুলের পূর্ব পাশের কাউসার মিয়ার বাড়িতে গ্যাসলাইনের ছিদ্র থেকে আগুন ধরে যায়। সেই আগুন পাশের সেমিপাকা টিনশেড ঘরের ভাড়াটে আনোয়ার হোসেনের ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে আনোয়ার হোসেনের পরিবারের চারজন দগ্ধ হন। আগুনে ওই ঘরের কিছু জিনিস পুড়ে গেছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. আবুল খান প্রথম আলোকে বলেন, আগুনে আনোয়ার হোসেনের ১৭ শতাংশ, রোজিনা বেগমের ১৪ শতাংশ, দুই ছেলে রোহানের ৩৫ শতাংশ ও রোমানের ১৭ শতাংশ পুড়ে গেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন