বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

থানায় দেওয়া লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলার গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নের একটি বিদ্যালয়ের ওই ছাত্রী রোববার দুপুরে বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় অভিযুক্ত তিন তরুণ তাকে রাস্তা থেকে মুখ চেপে ধরে পাশের একটি বসতঘরে নিয়ে যান। সেখানে তাঁরা ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন এবং ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করেন। ওই বসতঘরের মালিক লিপি বেগম (৩২) একই ইউনিয়নের ভোটাল গ্রামের ফারুকের স্ত্রী। তিনিও এ অপরাধে সহযোগিতা করেন বলে ওই ছাত্রী অভিযোগ করেছে।

অভিযুক্ত তিন তরুণ হচ্ছেন সাইসাঙ্গা গ্রামের শিমুল (২৪), নোয়াপাড়া গ্রামের ইজাজ হোসেন (২৩) ও আষ্টা গ্রামের সাব্বির হোসেন (২৪)। ধর্ষণের ঘটনা কাউকে জানালে ধারণ করা ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়া হবে বলে ওই ছাত্রীকে হুমকি দেন অভিযুক্ত তরুণেরা।

এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শহীদ হোসেন বলেন, ছাত্রীর পরিবারের দেওয়া লিখিত অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করার প্রক্রিয়া চলছে। চাঁদপুর সদর হাসপাতালে ওই ছাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত আসামিদের আটকের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন