default-image

ফরিদপুরে মো. বাবুল মোল্লা (৩৩) নামের এক ইজিবাইকচালককে পুড়িয়ে হত্যা করে তাঁর ইজিবাইকটি নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সদরের অম্বিকাপুর ইউনিয়নের খালাসী দুর্গাপুরের তারাইল-গোয়ালন্দ সড়কের ঢাল থেকে বাবুলের লাশ উদ্ধার করে কোতোয়ালি থানার পুলিশ।

বাবুল মোল্লা গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার দিগনগর ইউনিয়নের বর্ণী গ্রামের এসকেন মোল্লার ছেলে। নিহতের বড় ভাই দেলোয়ার হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, গত রোববার গোপালগঞ্জ থেকে ফরিদপুরে আসার জন্য তাঁর ভাইয়ের ইজিবাইক ভাড়া করেন কয়েকজন। এরপর থেকেই ভাইয়ের কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। রাতে বাড়ি না ফেরায় পরদিন মুকসুদপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। মুকসুদপুর থানা-পুলিশ বাবুলের ফোন ট্র্যাকিং করে লোকেশন দেখতে পায় ফরিদপুরের সদর উপজেলার অম্বিকাপুর ইউনিয়নে।

ইজিবাইকচালক বাবুল মোল্লা (৩৩) নিখোঁজের পর মুকসুদপুর থানা-পুলিশ বাবুলের ফোন ট্র্যাকিং করে লোকেশন দেখতে পায় ফরিদপুরের সদর উপজেলার অম্বিকাপুর ইউনিয়নে।

আজ সকালে অম্বিকাপুরের খালাসী দুর্গাপুরের স্থানীয় লোকজন আগুনে পুড়ে যাওয়া একটি লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় মামলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

খালাসী দুর্গাপুর এলাকাবাসী জানান, আগুন দিয়ে নৃশংসভাবে ইজিবাইকচালককে হত্যা করা হয়েছে। সড়কের ঢালে আগুনে পোড়া লাশটি পড়ে ছিল। রাতের আঁধারে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা তাঁকে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে পুড়িয়ে দেয়। তিনি যাতে চিৎকার করতে না পারেন, সে জন্য মুখে কাপড় গুঁজে দেওয়া হয়।

নিহতের ভাই দেলোয়ার বলেন, তাঁর ভাইকে কয়েক দিন আগে নতুন এ ইজিবাইকটি কিনে দেওয়া হয়। ইজিবাইক ছিনিয়ে নিতেই তাঁর ভাইকে নৃশংসভাবে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কবিরুল সাগর জানান, আগুনে পুড়ে যাওয়া লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় বাদীর অভিযোগের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, ইজিবাইক ছিনিয়ে নিতেই আগুন দিয়ে পুড়িয়ে চালককে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন