default-image

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় অবৈধভাবে ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনা ও চিকিৎসাসেবার দায়ে তিনজনকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে ডায়াগনস্টিক সেন্টারটি সিলগালা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলা সদরের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পাশে হোগলাডাংগী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

দণ্ডপ্রাপ্ত তিনজন হলেন মামুন-অর-রশিদ (৩৯), মুজিবুর রহমান (৫৪) ও ওসমান মুন্সি (৫১)।

ভ্রাম্যমাণ আদালতসংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, অভিযোগের ভিত্তিতে হোগলাডাংগী এলাকায় পদ্মা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালানো হয়। সনদ ছাড়া ভুয়া চিকিৎসাসেবার দায়ে ভাঙ্গার রায়পুর এলাকার মামুন-উর-রশিদকে ছয় মাস, ডায়াগনস্টিক সেন্টারটির পরিচালক হোগলাডাংগী এলাকার মুজিবুর রহমানকে তিন মাস এবং সরবরাহকারী ও দালাল ওসমান মুন্সিকে দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এই দণ্ড দেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আল আমিন। তিনি বলেন, কারাদণ্ড দেওয়ার পর তাৎক্ষণিকভাবে ওই তিনজনকে ফরিদপুর জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি ভাঙ্গা পৌরসভার আতাদী এলাকার এক বাসিন্দা পদ্মা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অ্যাপেন্ডিসাইটিসের অস্ত্রোপচার করান। এতে তাঁর ইনফেকশন দেখা দেয়। এ অবস্থায় ওই ব্যক্তির স্বজনেরা ফরিদপুরে র‌্যাব-৮-এর কাছে অভিযোগ করেন। সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযানে যান।

মন্তব্য পড়ুন 0