বিজ্ঞাপন

সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, চিঠি পাওয়ার পর ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ কনসালট্যান্ট (নাক, কান, গলা) উষা রঞ্জন চক্রবর্তীকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন জেনারেল হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ কনসালট্যান্ট (শিশু) এ এইচ এ সায়াদ ও মেডিকেল কর্মকর্তা মোরশেদ জামান। গত মঙ্গলবার দুপুরে ওই কমিটি প্রতিবেদন জমা দেয়। এতে রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে নিয়োজিত স্বাস্থ্য সহকারী আজিজুর রহমান, তত্ত্বাবধানের কাজে নিয়োজিত আইপিআই সুপার ইখতেখার আলম খান ও কোল্ড চেন টেকনিশিয়ান সমীর কুমার মজুমদারের বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ আনা হয়।

তদন্ত কমিটি সূত্রে জানা গেছে, স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে গত ১০ বছর ধরে আজিজুর রহমান কর্মরত থাকলেও স্টোরকিপার হিসেবে তাঁর কোনো প্রশিক্ষণ ছিল না। যে ফ্রিজে ভ্যাকসিনগুলো সংরক্ষণ করা হয়, সেটির তাপমাত্রা সঠিকভাবে পর্যবেক্ষণে গাফিলতি ছিল দুই পরিদর্শক ইখতেখার আলম খান ও সমীর কুমার মজুমদারের।

সিভিল সার্জন ছিদ্দীকুর রহমান বলেন, তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে আজিজুর রহমান ও দুই পরিদর্শককে তিন দিনের মধ্যে দায়িত্বে অবহেলার জন্য কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তা জানতে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। জবাব সন্তোষজনক না হলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন